• ডিসেম্বর ১০, ২০১৬
  • Uncategorized
  • 25
মেজবাহ্ হত্যার অন্যতম আসামী রানা গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেটের জিন্দাবাজারে প্রকাশ্যে খুন হওয়া মেজবাহ উদ্দিন হত্যার অন্যতম আসামী রানা কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৯। শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ১০ টার দিকে নগরীর বন্দরবাজার থেকে গ্রেফতার করা হয়। সে দক্ষিণ সুরমার হাজী মাঝপাড়া গ্রামের মৃত সিদ্দিক আলীর ছেলে।

র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মেজবাহ হত্যা কান্ডে জড়িত বলে স্বীকার করেছে। র‌্যাব আরো জানায়, গত ২৬ নভেম্বর রাতে বন্ধুদের বিরোধের জের ধরে খুন হয় মেজবাহ উদ্দিন। হত্যাকান্ডের গটনার মামলা দায়েরর পরপরই বিশেষ গোয়েন্দা দল নিয়োজিত করে র‌্যাব তাদের দেয়া তথ্যে জানা গেছে হত্যা কান্ডে কবির, রানা, সাব্বিরসহ আরো কয়েকজন জরিত। এদিকে হত্যা মামলার প্রধান আসামী কবিরের ১৬৪ জবানবন্দিতেও রানা ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট বলে জানায়। এর প্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে রানাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। রানা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নিজেকে হত্যাকান্ডের সাথে সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছে।
গ্রেফতারকৃত আসামী রানাকে কোতয়ালী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য,  গত শনিবার (২৬ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৮টায় নগরের জিন্দাবাজারস্থ জিম থেকে ফেরার পথে প্রকাশ্যে মেজবাহ উদ্দিনকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা ।  এঘটনার পর পুলিশ একটি মার্কেটের সিসি ক্যামারে থেকে ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করে দেখতে পায় কবীর চাপাতি মুছতে মুছতে চলে যাচ্ছে।

মিসবাহর পিতা রহমত উল্লাহ জার্মানপ্রবাসী। ছেলেমেয়েদের লেখাপড়ান জন্য প্রায় ৮বছর আগে স্বপরিবারকে সিলেট নগরের মজুমদারী কোনাপাড়ার নিয়ে আসেন। তাঁর স্ত্রী, তিন মেয়ে ও এক ছেলে (নিহত মেজবাহ) একই সঙ্গে থাকতেন। ২০১৪ সালে সিলেট কমার্স কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে মেজবাহ। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়লেখার সুযোগ না পেয়ে আর তিনি পড়াশুনা চালিয়ে যাননি। গত রমজান মাসে বন্ধু কবিরের সাথে নগরের কাজী ম্যানশনে বিরোধের পর তাকে বিদেশে পাঠানোর প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছিল।