• মে ৩, ২০১৮
  • শীর্ষ খবর
  • 150
“জাফলংয়ের জিরো পয়েন্টের পাথর লোট” ১২ টি নৌকা আটক করেছে বিএসএফ, নিরব বিজিবি

মোঃ রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর প্রতিনিধিঃ প্রাকৃতিক কন্যা খ্যাত সিলেটের পর্যটন নগরীর অন্যতম স্থান জাফলংয়ের জিরো পয়েন্টের সৌন্দর্য্য যা ভ্রমন পিপাসুদের আকৃষ্ট করে। সে স্থানটি বিনষ্ট করে যাচ্ছে পাথর খেকু খ্যাত এক শ্রেনীর অর্থলোভী চক্র।সম্প্রতি পাথর লোট করতে গিয়ে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহীনি কাছে আটক হয় ১২টি নৌকা, নেই বিজিবির তৎপরতা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় বাংলাদেশ পর্যটন নগরী সিলেটের অন্যতম স্থান জাফলং। আর এর প্রধান আর্কষণ হচ্ছে পাথর ও সচ্ছপানি এবং পাহাড়রাজ্য। যার ফলে সারা বছর এখানে ভ্রমন পিপাসুদের ভীড় লেগেই থাকে। জাফলং ভ্রমন না করলে ভ্রমনের আনন্দটাই পরিপূর্ণতা লাভ করে না পর্যটক প্রেমীদের। পর্যটকদের প্রধান আকর্ষন স্থল হল জিরো পয়েন্ট। কিন্তু এক শ্রেনীর পাথর খেকু চক্র স্থানীয় সীমান্তফাড়ির সদস্যদের সহযোগিতায় দিন-রাত সমান ভাবে জিরো পয়েন্ট ১২৭৩নং মেইল পিলারের ৭এস পিলার সংলগ্ন হতে নৌকা প্রতি ১৫শত টাকার বিনিময়ে পাথর লোট করার সুযোগ করে দিচ্ছে চক্রটি।

ভারতের মেঘালয় রাজ্যেরে ডাউকী নদীর বুক ছিয়ে বয়ে আসা পানির সাথে নূনিপাথর গুলো প্রকৃতিক ভাবে সাজিয়ে রয়েছে পিয়াইন নদীর উৎস্য মূখে। যাহা ভ্রমন পিপাসুদের আনন্দের প্রধান উৎস। সেই উৎস স্থল হতে পাথর অবৈধ পন্থায় প্রতিনিয়ত পাথর উত্তোলনের ফলে পর্যটকরা মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে সিলেটের অন্যতম পর্যটন স্পর্ট জাফলং জিরো পয়েন্ট হতে।

এদিকে গতকাল ২রা মে বুধবার দিবাগত রাত ১১টায় পাথর লোটকারী চক্রের অন্যতম সদস্য হানিফ, মোস্তফা, সাজুল, সহিদ এবং নুরু মিয়ার নেতৃত্বে ২শতাধিক বারকী নৌকা ভারতীয় সীমান্তবর্তী ডাউকী ও বাংলাদেশের পিয়াইন নদীর মিলনস্থল জিরো পয়েন্টে পাথর লোট করতে গেলে ভারতীয় বিএসএফ হাতে ১২টি নৌকা আটক হয়।

বিএসএফ এর হাতে আটক ৫টি নৌকা।

এসময় প্রাণ নিয়ে সাধারণ শ্রমিকরা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে প্রাণ রক্ষা হলেও পাথর উত্তোলন কাজে ব্যবহৃত নৌকা রক্ষা করতে পারেনি। ভারতীয় বিএসএফ বাহিনী নৌকা ফেরত না দিয়ে ৭টি নৌকা ভেঙ্গে ফেলে পিয়াইন নদীতে ভাসিয়ে দেয় এবং ৫টি নৌকা আটক করে তাদের জিম্মায় নিয়ে যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সাধারণ ব্যবসায়ীরা বলেন, আমরা পাথর কোয়ারী হতে পাথর উত্তোলন করে আসছি স্বাভাবিক নিয়মে। কিন্তু একশ্রেনীর পাথর খেকুরা অবৈধ ভাবে সুযোগ বুঝে জিরো পয়েন্ট হতে পাথর সংগ্রহ করার কারনে পাথর ব্যবসায়ীদের সম্মান ক্ষুন্ন হচ্ছে। আমরা প্রকৃতিক সৌন্দর্য্য রক্ষায় সংশ্লিষ্ট আইন শৃংঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করি।

এবিষয়ে জানতে বিএসএফ এর সংগ্রামপুজঞ্জি সীমান্ত ফাঁড়ির কমান্ড নায়েক সুবেদার জয়নালের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ক্যাম্পে না থাকায় কথা বলা যায়নি।

ক্যাম্পের বর্তমান হাবিলাদার আলমগীর জানান, জিরো পয়েন্ট হতে ১৫০গজ দূরবর্তী স্থান হতে দরিদ্র শ্রমিকরা পাথর উত্তোলন করছে বলে তিনি দাবী করেন। নৌকা আটকের বিষয়টি তার জানানেই বলে জানান।