• মে ৪, ২০১৮
  • লিড নিউস
  • 86
সিলেটে প্রবাসীকল্যাণ সেলে ১৬ মাসে ৭৭ অভিযোগ

বিশেষ প্রতিবেদন: সিলেট অঞ্চলে জায়গা-জমি নিয়েই প্রবাসীরা বেশি হয়রানির শিকার হন। পারিবারিক বিরোধ ও জীবনের নিরাপত্তা নিয়েও অনেক প্রবাসীকে পুলিশের দ্বারস্থ হতে হয়। আবার কেউ কেউ অপহরণের হুমকি পেয়ে ছুটে যান আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে। পুলিশের প্রবাসীকল্যাণ সেলে দায়েরকৃত অভিযোগগুলো পর্যালোচনা করে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। গত বছর সিলেট বিভাগে ৫৩জন প্রবাসী হয়রানির শিকার হন। আর চলতি বছরের প্রথম চার মাসেই ২৪জন প্রবাসী হয়রানির শিকার হয়েছেন। সিলেট রেঞ্জের ডি.আই.জি কামরুল আহসান পিপিএম বলেছেন, প্রবাসীদের হয়রানিরোধে পুলিশ জিরো টলারেন্সে কাজ করছে।

প্রবাসীকল্যাণ সেলে দেয়া অভিযোগগুলো পর্যালোচনা করে দেখা যায়, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে এপ্রিল মাস পর্যন্ত মোট ২৪টি অভিযোগ আসে। এর মধ্যে ১০টি অভিযোগই হলো জায়গা-জমি সংক্রান্ত। এর পরেই রয়েছে নিরাপত্তা সংক্রান্ত ৫ অভিযোগ। আছে পারিবারিক বিরোধের ৪ অভিযোগও। গত বছরের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত অভিযোগ এসেছে ৫৩টি।

এর মধ্যে ২৮টি হলো জায়গা-জমি সংক্রান্ত। হুমকি পেয়ে অভিযোগ করেন ৬জন। আর পারিবারিক বিরোধে ৫ জন অভিযোগ করেন। হয়রানির শিকার প্রবাসীরা যুক্তরাজ্যের নাগরিক। অবশ্য গত ১৬ মাসে আসা ৭৭টি অভিযোগের মধ্যে বিভিন্নভাবে ৬৫টি অভিযোগের নিষ্পত্তি করে দিয়েছে পুলিশ। সিলেট রেঞ্জ ডি.আই.জি অফিসের পুলিশ সুপার নুরুল ইসলাম এই তথ্য জানিয়েছেন।

সূত্র জানায়, চলতি বছরের চার মাসে ২৪টি অভিযোগ আসে প্রবাসীকল্যাণ সেলে। এর মধ্যে জায়গা-জমির ১০টি পারিবারিক বিরোধ ৪টি, নিরাপত্তা সংক্রান্ত ৫টি, অপহরণ-হুমকি সংক্রান্ত ৪টি ও অন্যান্য ১টি। এসকল অভিযোগের মধ্যে আদালতের শরণাপন্ন হওয়ায় সামাজিকভাবে সার্ভেয়ারের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করার পরামর্শ প্রদানের মাধ্যমে ৬টি অভিযোগ নিষ্পত্তি করা হয়। মামলা রুজু ও নন এফ.আই.আর প্রসিকিউশনের মাধ্যমে ২টি, নিরাপত্তা প্রদানের মাধ্যমে ৪টি, আপোস-মীমাংসার মাধ্যমে ২টি, অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ১টিসহ মোট ১৬টি অভিযোগের নিষ্পত্তি করে পুলিশ। তবে বাকি ৮টি অভিযোগের কোনো সুরাহা করতে পারেনি পুলিশ।

এদিকে গত বছর দায়েরকৃত ৫৩ অভিযোগের মধ্যে ২৮টি ছিল জায়গা-জমি সংক্রান্ত। জালিয়াতির ১টি, পারিবারিক বিরোধ ৫টি, নিরাপত্তা সংক্রান্ত ৩টি, অপহরণের হুমকি সংক্রান্ত ৬টি ও অন্যান্য বিষয়ের অভিযোগ ছিল ৬টি। এর মধ্যে সামাজিকভাবে নিষ্পত্তি করার পরামর্শে নিষ্পত্তি করা হয় ১০টি, মামলা দায়ের ও নন এফ.আই.আর প্রসিকিউশন দাখিলের মাধ্যমে নিষ্পত্তির সংখ্যা ৬টি, নিরাপত্তা প্রদানের মাধ্যমে নিষ্পত্তির সংখ্যা ৫টি, আপোস-মীমাংসার নিষ্পত্তির সংখ্যা ৭টি এবং ১১টি অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মোট ৪৯টি অভিযোগের নিষ্পত্তি করে পুলিশ। তবে ৪টি অভিযোগের কোনো নিষ্পত্তি করা সম্ভব হয়নি।

সূত্র জানায়, সিলেট বিভাগের মধ্যে গত ১৬ মাসে শুধুমাত্র সিলেট জেলায় ২৭জন হয়রানির শিকার হন। এর পরেই মৌলভীবাজারে হয়রানির শিকার হন ১০জন, সিলেট মহানগরীতে ১১জন, হবিগঞ্জে ৬জন এবং সুনামগঞ্জে ৭জন প্রবাসীর নিকট থেকে প্রবাসীকল্যাণ সেলে অভিযোগ আসে।

সিলেট রেঞ্জের ডি.আই.জি কামরুল আহসান পিপিএম এ প্রসঙ্গে বলেন, প্রবাসীকল্যাণ সেলে অভিযোগ আসামাত্রই পুলিশ এ্যাকশনে নামে। অনেক অভিযোগ আমরা নিষ্পত্তি করে দেই। আবার অনেক অভিযুক্তের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নিতে হয়। তবে দেশে থাকা স্বজনদের তাদের প্রবাসী স্বজনের প্রতি আরো আন্তরিক হওয়া দরকার। কারণ প্রবাসীরাতো কেবল দেশেরই নয় ঐ পরিবারেরও প্রাণ।