• জানুয়ারি ৯, ২০১৯
  • শীর্ষ খবর
  • 40
বিয়ানীবাজারে কলেজছাত্র হোসেন হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

বিয়ানীবাজার প্রতিনিধি: বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী মো. হোসেন উদ্দিন হত্যা মামলায় একমাত্র আসামি সুমন আহমদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আজ বুধবার (০৮ জানুয়ারি) ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিয়ানীবাজার থানার এসআই মহসিন আহমদের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম পার্শ্ববর্তী বড়লেখা উপজেলার তালিমপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।

ঘাতক সুমন আহমদ (১৮) বিয়ানীবাজার পৌরশহরের নিদনপুর এলাকার মুহিব আলীর পুত্র এবং পৌরসভার সাবেক কাউন্সিলর মনির আলীর ভাতিজা।

বিয়ানীবাজার থানার ওসি (তদন্ত) জাহিদুল ইসলাম গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঘাতক সুমন গত ১ মাস ধরে আত্মগোপনে ছিল। পুলিশ তাকে গ্রেপ্তারের সকল চেষ্টা অব্যাহত রেখেছিল। অবশেষে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে বড়লেখার তালিমপুর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ৩ ডিসেম্বর বিকাল ৩টার দিকে বিয়ানীবাজার পৌরসভার নিদনপুর গ্রামের প্রবাসী কমর উদ্দিনের পুত্র ফাহিম আহমদ (১০) বাইসাইকেল নিয়ে রাস্তায় বের হলে তাকে লাথি দেয় একই এলাকার সুমন আহমদ। একই সময়ে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে এ ঘটনা দেখে প্রতিবাদ করলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শিক্ষার্থী হোসেন উদ্দিনের মাথা লক্ষ্য করে ভারি বস্তু দিয়ে আঘাত করে সুমন। এতে ঘটনাস্থলেই জ্ঞান হারান হোসেন। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। তার শারীরিক অবস্থা অবনতি হওয়া পরে সিলেটের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৫ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৯টার দিকে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ঐ দিনই বিয়ানীবাজার থানায় ঘাতক সুমনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে নিহত কলেজ শিক্ষার্থী হোসেনের পরিবার।

নিহত কলেজ শিক্ষার্থী মো. হোসেন উদ্দিন (১৭) পৌরশহরের নিদনপুর এলাকার ছমির উদ্দিনের পুত্র। সে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী।