• ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১৯
  • শীর্ষ খবর
  • 34
রসায়ন বিভাগ মুরারিচাঁদ কলেজের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: রসায়ন বিভাগ মুরারিচাঁদ কলেজের প্রথম পুনর্মিলনী উৎসব শুক্রবার (৮ ফেব্রুয়ারি) অনুষ্ঠিতহয়েছে।পুনর্মিলনীকে কেন্দ্র করে রসায়ন বিভাগ সেজেছিল বর্ণিল সাজে। প্রাক্তণী,ছাত্র শিক্ষকের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছিল রসায়ন বিভাগ। শতপ্রাণের স্পন্দনে জেগে উঠেছিল মুরারি চাঁদের ক্যাম্পাস।

জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সংগীত পরিবেশেনের মাধ্যমে শুরু হয় উৎসব। এরপর বেলুন উড়ানো ও এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিতহয়। উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন মুরারিচাঁদ কলেজের অধ্যক্ষ নিতাই চন্দ্র চন্দ, বিশেষ অতিথি ছিলেন উপাধ্যক্ষ মো. সালেহ আহমদ।

প্রধান অতিথি অধ্যক্ষ নিতাই চন্দ্র চন্দ তার বক্তব্যে বলেন, সদিচ্ছা ও উদ্দ্যোম থাকলে সবকিছু সুসপন্ন করা যায়। আজকের পুনর্মিলনি তারই উদাহরণ। কেমিস্ট্রি এলামনাই এসোসিয়েশন, মুরারিচাঁদ কলেজ নবীন-প্রবীণের সেতু বন্ধনের পাশাপাশি কলেজের বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রমের সহযাত্রী হবে।কেমিস্ট্রি এলামনাই এসোসিয়েশন কার্যক্রম শুধু পুনর্মিলনিতেই থেমে থাকবেনা বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন প্রধান অতিথি।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন মুরারিচাঁদ কলেজের প্রাক্তণ অধ্যক্ষ ও রসায়ন বিভাগের প্রাক্তণ বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক শ্রী নিবাস দে, মুরারিচাঁদ কলেজ শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. তোতিউর রহমান, স্বাগত বক্তব্য দেন কেমিস্ট্রি এলামনাই এসোসিয়েশন, মুরারিচাঁদ কলেজের আহবায়ক তোফায়েল আহাম্মদ।

উৎসবে স্মৃতিচারণ পর্বে স্মৃতি রোমন্থন করেন, রসায়ন বিদ্যাবিভাগের প্রাক্তণ বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক তপন কান্তিধর, প্রাক্তন শিক্ষক অধ্যাপক মেঘনাথ সাহা, অধ্যাপক সুধাংশুশেখর তালুকদার, সিনিয়র এলামাইন অধ্যক্ষ লে. কর্ণেল (অব:) আতাউর রহমান পীর, অধ্যাপক আবদুুল মতিন, অধ্যাপক বিজিত কুমার ভট্টচার্য্য,অধ্যাপক পরিমল কান্তি দে, অধ্যাপক ড. মাসুদুল হাসান, অধ্যাপক মোহিনী কুমার দে ও বিভিন্ন সেশনের প্রাক্তণিরা।

স্মৃতিচারণ পর্বে সভাপতিত্ব করেন রসায়ন বিদ্যা বিভাগ এমসি কলেজের বিভাগীয় প্রধান অধ্যপক অশোক কুমার পাল। পুরো অনুষ্ঠান সঞ্চালনা ও ব্যবস্থাপনায় ছিলেন রসায়ন বিদ্যা বিভাগের শিক্ষক মো. শাহজাহান কবীর, মাহমুদা আলম, সুজিত চন্দ্র দত্ত, চঞ্চলরায় শুভ।

সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও র‌্যাফেল ড্র। সাংস্কৃতিকপর্বে অংশ নেন রসায়নবিদ্যা বিভাগের প্রাক্তণী ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা।