• মে ২২, ২০১৯
  • শীর্ষ খবর
  • 8
সিসিকের প্রধান ফটক হকারদের দখলে!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সিসিকের প্রধান ফটক দখলমুক্ত না করতে পারলেও মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নগরের সড়ক ও ফুটপাতে রীতিমত অভিযান চালিয়ে যাচ্ছেন। সিসিকের প্রধান ফটকরে সামন থেকে পোস্ট অফিস পর্যন্ত হকারদের দখলে থাকায় সাধারণ মানুষসহ পথচারিদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

পথচারি সাব্বির আহমদ ও রকিব উদ্দিনসহ একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করেন, মেয়র নগরের দখলকৃত সড়ক ও ফুটপাত দখলে প্রতিনিয়িত কাজ করে যাচ্ছেন। অথচ তারই নগর ভবনের সামনে দীর্ঘদিন থেকে হকাররা বসে ব্যবসা করে আসছে। তারা রাস্তার উপর চশমা, সবজি বিক্রি ও তালা-চাবি মেরামত করে আসলেও কেউই বিষয়টি দেখছেন না। পথচারিদের চলাচলের ফুটপাত ও যানচলাচলের জন্য সড়কগুলো দ্রুত চলাচলের উপযোগী করে তুলার জন্য মেয়রসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান তারা।

সিসিকের প্রশাসনিক কর্মকর্তা হানিফুর রহমান বলেন, সিসিক সবসময় অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। প্রধান ফটকের সামনেও অভিযান চালানো হয়েছে একাধিকবার। তবুও হকাররা পূনরায় এসে বসে যায়। প্রয়োজনে আবারও অভিযান চালানো হবে।

জানা যায়, সিলেট সিটি করপোরেশনের জন্য নবণির্মিত ভবনের সামনের প্রধান ফটকটি দৃষ্টি নন্দন করে তৈরী করা হলেও সেটি ব্যবহার করেনা সিটি করপোরেশন। যার ফলে ফটকটির সামন দখল করে হকাররা নিশ্চিন্তে ব্যবসা করে যাচ্ছে। সোবহানীঘাট থেকে বন্দর বাজারের প্রবেশের এই সড়কের অর্ধেকের বেশীই হকারদের দখলের ফলে প্রতিদিন দীর্ঘ যানজটের সৃষ্ঠি হয়।

স্থানীয় ব্যবসায়ী মাহবুবুর রহমান জানান, সিসিকের নির্মাণ করা নতুন ফটক বন্ধ রাখার কারনেই দখল হচ্ছে। এটি খোলা রেখে চলাফেরা করলে, ফটকসহ আশপাশের ফুটপাত দখল হতোনা। অনেক বছর থেকে সিটির সামনের ফুটপাত এলাকায় এই হকারদের দেখছি, মেয়র পুরো সিলেট হকার উচ্ছেদ অভিযান করলেও, উনার নিজের ভবনের সামন কি করে দখল থাকে সেটি বোদগম্য নয়।