• জুন ১৭, ২০১৯
  • খেলাধুলা
  • 21
রুবেল-লিটনকে একাদশে চান শাহরিয়ার নাফিস

ক্রীড়া ডেস্কঃ সোমবার বাংলাদেশ সময় দুপুর সাড়ে তিনটায় উইন্ডিজের বিপক্ষে নিজেদের পঞ্চম ম্যাচে খেলতে নামবে বাংলাদেশ। আর খাঁদের কিনারায় দাঁড়িয়ে থাকা বাংলাদেশ মরিয়া এই ম্যাচ জিততে। আর এই ম্যাচ নিয়ে ইএসপিএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বাংলাদেশের সাবেক উদ্বোধোনী ব্যাটসম্যান শাহরিয়ার নাফিস দলে দুই পরিবর্তন চাইছেন।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত তিনটি ম্যাচ খেলেছে আর বাকি একটি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছে। আর তাই তো বাঁচা মরার ম্যাচ হয়ে দাঁড়িয়েছে উইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচটি। এই ম্যাচটি আয়োজিত হবে টন্টনের কাউন্টি গ্রাউন্ডে।

আকারের দিক থেকে টন্টনের মাঠটি একটু ছোট আর সেই সাথে এই পিচ থেকে কোনো রকম বাড়তি সুবিধা মেলে না স্পিনারদের। আর তাই তো বাংলাদেশের এক সময়কার উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান শাহরিয়ার নাফিস দলে দেখছেন রুবেল হোসেনকে।

এই উইকেটে পেসাররা কিছুটা সুবিধা পাবে আর রুবেল তার গতির সাথে উইকেটের সুবিধা বেশ ভাল করেই কাজে লাগাতে পারেন। আর উইন্ডিজের বিপক্ষে রুবেলের অতীত পারফরম্যান্সটাও বেশ দারুণ বলেই তাকে দলে দেখছেন নাফিস।

নাফিস বলেন, ‘রুবেল বেশ কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশ দলে দারুণ পারফম্যান্স করে আসছে। বাংলাদেশের পেসারদের মধ্যে সেরাদের একজন সে। আর এই পিচে সে বেশ ভাল করবে বলেই আমি মনে করি। আর এই পিচে স্পিনারদের বাড়তি কোনো সুবিধা মিলবে না তাই একজন স্পিনার কম খেলিয়ে রুবেলকে খেলানোটাই ভাল সিদ্ধান্ত হবে বলে আমি মনে করি।’

২০১৮ সালের পর থেকে লাল সবুজের জার্সি গায়ে রুবেল ১৮টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন। আর এই সময়ে ২৫টি উইকেটও নামের পাশে যোগ করেছেন রুবেল। আর ২০১৮ থেকে বর্তমান পর্যন্ত রুবেলের বোলিং গড় ২৪.৫২ আর ইকোনমি রেট মাত্র ৫.২২।

এছাড়াও ব্যাটিং সম্পর্কে বলতে গিয়ে নাফিস বলেন, ‘বাংলাদেশের ব্যাটিং এই বিশ্বকাপে দারুণ পারফরম্যান্স করেছে। যা সত্যিই আশা জাগায় বাংলাদেশকে। তবে কয়েকজন ব্যাটসম্যান আছেন যারা তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী ভাল ব্যাটিং করতে পারেননি। তাই আমি এই ম্যাচে লিটন দাসকে দেখতে চাই মোহাম্মদ মিঠুনের পরিবর্তে।‘

লিটন সম্পর্কে নাফিস বলেন, ‘লিটন দারুণ একজন ব্যাটসম্যান। আর সাম্প্রতিক সময়ে সে ভাল ফর্মেও আছে। তাই তাকে এই ম্যাচে দলে দেখতে চাই আমি।’

বাংলাদেশ শর্ট বলে বেশ দুর্বল এ নতুন কিছু নয়। বাংলাদেশের পিচ কখনোই ইংল্যান্ডের মতো বাউন্সি কিংবা সুইং দেয় না। তাই তো বৈরী পরিবেশে খেলতে আসলে কিছুটা ভুগতে হয় টাইগার ব্যাটসম্যানদের। এ সম্পর্কে নাফিস বলেন, ‘বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা এখন আর শর্ট বল কিংবা গতিওয়ালা বোলারদের ভয় করে না। এখন বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা শর্ট বল এবং গতিওয়ালা বল দারুণ খেলে।’

এছাড়াও মাশরাফির বোলিং সম্পর্কেও কথা বলেছেন তিনি। অধিনায়ক মাশরাফির বোলিং সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে বলেনব, ‘মাশরাফি কেবল উইন্ডিজের বিপক্ষেই নয় শেষ কয়েক বছরে বাংলাদেশের সেরা পেস বোলার। সে ভাল খেললে বাংলাদেশ দল ভাল খেলে।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘হ্যাঁ! এবারের বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত মাশরাফি প্রত্যাশা অনুযায়ী পারফর্ম করতে পারেনি তবে সে ভাল করবে বলে আমার বিশ্বাস।’

উইন্ডিজদের বিপক্ষে মাশরাফি এখন পর্যন্ত ১৮টি ওয়ানডে মায়চ খেলেছে আর নামের পাশে ৩০টি উইকেট সংগ্রহ করেছে।