• জুলাই ৫, ২০১৯
  • খেলাধুলা
  • 23
আজই বিদায় বলবেন মাশরাফি!

ক্রীড়া ডেস্কঃ ঐতিহ্য আর আভিজাত্যের লর্ডসে যখন বাংলাদেশ দল অনুশীলনে ব্যস্ত তখন বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছিল মাশরাফির অবসরের গুঞ্জন। শুক্রবার (৫ জুলাই) ম্যাচ শেষেই নাকি আনুষ্ঠানিকভাবে ওয়ানডে ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন বাংলাদেশ কিকেটের দিন বদলের এই দলপতি। লর্ডসের এই ম্যাচটি শেষে বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকেই নাকি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন বাংলাদেশের ক্রিকেটকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া এই সংগ্রামী ক্রিকেটার!

কিন্তু এমন তো কথা ছিল না। বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়ার আগেও একাধিকবার বলেছেন ওয়ানডে ক্যারিয়ারের এপিটাফ তিনি এখনই লিখছেন না। বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরে তবেই। কিন্তু হঠাত করেই কেন এই গুঞ্জন? নিশ্চয়ই কারণ আছে। কী সেটা? রহস্য উন্মোচনে মাঠের এদিক ওদিক তাকিয়েও কুল কিনারা করা গেল না। কেননা পাকিস্তান ম্যাচের আগে অনুশীলনে আসেননি নড়াইল এক্সপ্রেস। একমাত্র ভরসা ছিল ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে। সেখানেও তিনি নেই! তার বদলে এলেন হেড কোচ স্টিভ রোডস।

সন্দেহ আরো ঘণীভূত হয়, তাহলে কী অবসর নিয়ে সাংবাদিকদের এড়াতেই সংবাদ সম্মেলন পরিহার করলেন? স্টিভ রোডসকে এ নিয়ে প্রশ্ন করা হলো, কিন্তু সঠিক কোনো উত্তর তিনি দিতে পারেননি। সাংবাদ সম্মেলনে শেষে অধিকাংশ সাংবাদিক বাংলাদেশের ড্রেসিং রুমের সামনে গিয়ে দাঁড়ালেন যদি একবার মাশরাফিকে পাওয়া যায়! কিন্তু নিরাপত্তা কর্মীদের বাধায় সেখানে দাঁড়ানো সম্ভব হয়নি। আরেক দফা বাড়ে সন্দেহ।

হঠাৎ তাকে আবিষ্কার করা গেল লর্ডসের বেলকনিতে। দূর থেকে স্পষ্টই বোঝা যাচ্ছিল তিনি হতাশাচ্ছন্ন। এমনকি দলের সঙ্গে বাসে ওঠার সময় চিরাচরিত হাসিখুশি অবয়বে দেখা যায়নি টাইগার দলপতিকে। দৃষ্টি আকষর্ণ করা হলে অনিচ্ছা সত্বেও জবাব দেন, ‘সময় হলে সবই জানতে পারবেন?’

২০১৪ সালে দ্বিতীয় দফা অধিনায়কত্ব ফিরে পাওয়ার পর ক্যারিশম্যাটিক নেতৃত্ব আর বল হাতে অগ্নিস্ফুলিঙ্গ ছড়িয়ে যে মাশরাফি বাংলাদেশের মুকুটহীন সম্রাট জয়ে উঠেছিলেন, বিশ্বকাপে পারফরম্যান্সহীনতায় সেই তাকেই কী না খলনায়কের কালিমা লেপন করা হচ্ছে! কিন্তু তিনি তো সুস্থ শরীরে বিশ্বকাপে খেলতে পারেননি। আয়ারল্যান্ডে পাওয়া হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট নিয়ে এসেছেন ইংল্যান্ডে। সেটা জেনেও এদেশের মানুষ তাকে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখছে না! সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমতো বটেই, দেশ বিদেশের ডাকসাইটে সংবাদ মাধ্যমগুলোও তাকে অধিনায়কত্ব ছাড়তে বাধ্য করছে।

তাহলে কী সেই অভিমানেই ক্রিকেট থেকে বিদায় নিচ্ছেন লাল সবুজের ক্রিকেটের এই যোদ্ধা? মাশরাফিকে যারা কাছ থেকে জানেন এক বাক্যে স্বীকার করবেন তিনি ভীষণ আবেগ প্রবন। সেই আবেগের বশবর্তী হয়েই দুই বছর আগে বলা নেই, কওয়া নেই টি-টোয়েন্টি ছেড়ে দিয়েছিলেন। কাউকে কিছু না বলে শুধু পরিবার ও কাছের কয়েকজন ঘনিষ্ঠজনদের সাথে কথা বলেই তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। এবারও কী তাই করবেন?

বিশ্বকাপ থেকে অবসর না নিলে মাশরাফির অবসর নেয়ার পরবর্তী প্লাটফর্ম হবে শ্রীলঙ্কা সফর। কিন্তু ঘণিষ্টসূত্র থেকে জানা গেছে, শ্রীলঙ্কা সফরে তার যাওয়ার ইচ্ছে নেই। সে ক্ষেত্রে ঘরের মাঠে অবসর নিতে হলে তাকে অপেক্ষা করতে হবে আগামী বছরের শেষের দিক পর্যন্ত। এর আগে ঘরের মাঠে নেই কোনো একদিনের সিরিজ। তাই মাশরাফিকে ঘরের মাঠ থেকে অবসর নিতে হলে আগামী বছরের শেষার্ধ পর্যন্তই অপেক্ষা করতে হবে।

এদিকে আরেকটি সূত্র জানিয়েছে, অবসর নিয়ে লন্ডনে অবস্থানরত বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে মাশরাফি আলোচনা করবেন। সেখানেই আসতে পারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত।