• জুলাই ৩০, ২০১৯
  • বিজ্ঞপ্তি
  • 64
বিশিষ্ট ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সুপ্রিয় চক্রবর্তী আর নেই

নিউজ ডেস্কঃ সিলেটের বিশিষ্ট ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এডভোকেট সুপ্রিয় চক্রবর্তী আর নেই।

২৯ জুলাই সোমবার রাত অনুমান ৮.২৫ মিনিটে ঢাকার বারডেম হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর।

সুপ্রিয় চক্রবর্তী সিলেটের অতি জনপ্রিয় একজন ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব। একজন সাবেক ক্রিকেটার হিসেবে ক্রীড়া ক্ষেত্রে তিনি ১৯৭৪ সাল থেকে মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত সিলেট জেলা ক্রিকেট কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। তাঁর নিজের প্রতিষ্ঠিত ইয়ুথ সেন্টার ক্লাবের সভাপতি ছিলেন তিনি। সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে তাঁর বিশেষ অবদান রয়েছে। তিনি সম্মিলিত নাট্য পরিষদ, সিলেটের প্রাক্তন সভাপতি হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও রবীন্দ্র সঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ, সিলেটের আহবায়ক হিসেবে সিলেটে রবীন্দ্র চর্চায় তাঁর যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে।

তিনি সিলেট সাহিত্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও নৃত্যশৈলী সিলেটের উপদেষ্টা ছিলেন।

সুপ্রিয় চক্রবর্তী সিলেট জেলা কর আইনজীবী সমিতির দুইবারের নির্বাচিত সাবেক সভাপতি। এছাড়াও তিনি সিলেট ডায়াবেটিক সমিতি, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, জেলা শিল্পকলা একাডেমীর আজীবন সদস্য ছিলেন। তিনি সিলেট ষ্টেশন ক্লাবের একজন সম্মানিত জীবন সদস্য।

সুপ্রিয় চক্রবর্তীর ইচ্ছানুযায়ী তাঁর দেহ গবেষণা কাজের জন্য দেশের বিখ্যাত কুমুদিনী হাসপাতালে প্রদান করা হবে।

সুপ্রিয় চক্রবর্তীর বাবা সুখময় চক্রবর্তী ও মা বীণাপানি চক্রবর্তী। তিন ভাই-তিন বোনের মধ্যে সুপ্রিয় চক্রবর্তী পঞ্চম সন্তান। তাঁর আদিনিবাস হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচংয়ে। সুপ্রিয় চক্রবর্তীর সহধর্মিনী বিশিষ্ট মানবাধিকার সংগঠক ও তত্ত্ববধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা এডভোকেট সুলতানা কামাল। তাঁর একমাত্র মেয়ে সুদেষ্ণা চক্রবর্তী দিয়া।
সুপ্রিয় চক্রবর্তীর মৃত্যুসংবাদ সিলেটে পৌঁছার সাথে সাথে সিলেটের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে এবং সুধীমহলে শোকের ছায়া নেমে আসে। তিনি বেশ কয়েকদিন যাবৎ ঢাকা বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তিনি বেশকিছুদিন যাবৎ নিউমোনিয়া ও শেষ পর্যায়ে ব্রেইনস্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে পড়েছিলেন।

এদিকে তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন সম্মিলিত নাট্য পরিষদ, সিলেটের সভাপতি মিশফাক আহমেদ চৌধুরী মিশু ও সাধারণ সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত। নাট্য পরিষদ এক বিবৃতিতে বলেন, সুপ্রিয় চক্রবর্তী সিলেটের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের একজন অভিভাবক ছিলেন। তিনি বিভিন্ন সংকটে নাট্য ও সংস্কৃতি কর্মীদের পাশে এসে দাঁড়ান। তারা বলেন, সম্মিলিত নাট্য পরিষদের সভাপতি হিসেবে সুপ্রিয় চক্রবর্তী অগ্রণী ভ‚মিকা পালন করেন। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ উল্লেখ করেন, তাঁর মৃত্যুতে সিলেটের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে অপূরণীয় ক্ষতি সাধিত হয়েছে।

অপর এক বিবৃতিতে সিলেট স্টেশন ক্লাবের সভাপতি এডভোকেট এমাদ উল্লাহ শহিদুল ইসলাম শাহীন সুপ্রিয় চক্রবর্তীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন।