• নভেম্বর ২৮, ২০১৯
  • জাতীয়
  • 41
জামিন পেলেন মেজর হাফিজ, খায়রুল খোকন

নিউজ ডেস্কঃ হাইকোর্টের সামনে গাড়ি ভাঙচুর ও পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) মো. হাফিজউদ্দিন আহম্মেদ ও যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকনকে জামিন দিয়েছেন আদালত। একই মামলায় গ্রেফতার জাতীয়তাবাদী হর্কাস দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেনও জামিন পেয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) বিকেলে বিএনপি নেতাদের জামিন শুনানি শেষে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাঈদ পুলিশের রিমান্ড আবেদন নাকচ করে ১০ হাজার মুচলেকায় জামিনের এ আদেশ দেন।

মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা রমনা থানার পুলিশ পরিদর্শক মো. দেলোয়ার হোসেন এ তিন আসামিকে আদালতে হাজির করে মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

এদিকে, গোলাম মোস্তফা খান, নজরুল ইসলাম ও তপনসহ আসামিপক্ষের আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল চেয়ে আসামিদের জামিন প্রার্থনা করেন। অন্যদিকে রাষ্টপক্ষের আইনজীবী আজাদ রহমান এ জামিনের বিরোধিতা করেন। সব পক্ষের শুনানি নিয়ে বিচারক রিমান্ডের আবেদন নামঞ্জুর করে ১০ হাজার মুচলেকায় এ জামিনের আদেশ দেন।

এর আগে, মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হাইকোর্টের সামনে অবস্থান নিয়েছিলেন দলটির নেতাকর্মীরা। দুপুর ২টার দিকে পুলিশ তাদের সরিয়ে দিতে লাঠিচার্জ ও বেশ কয়েক রাউন্ড টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে। পুলিশের ধাওয়ায় নেতাকর্মীরা পালিয়ে যাওয়ার সময় রাস্তায় গাড়ি ভাঙচুর করে। এসময় পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের একটি গাড়িও ভাঙচুর করা হয়। গাড়ি ভাঙচুর করতে করতে বিক্ষুব্ধ কর্মীরা সটকে পড়ে।

এ ঘটনায় শাহবাগ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মতিউর রহমান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ২৮ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরও ৫০০ জনকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন।

এ মামলায় বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হাইকোর্ট এলাকা থেকে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকনকে পুলিশ গ্রেফতার করে। পরে দুপুর দেড়টার দিকে একই এলাকা থেকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমেদকেও গ্রেফতার করে পুলিশ।