• জানুয়ারি ২৬, ২০২০
  • শীর্ষ খবর
  • 58
দক্ষ হয়ে বিদেশ গেলে অর্থ সম্মান দুটোই মিলে: ইমরান আহমদ

নিউজ ডেস্কঃ প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেছেন, দক্ষ হয়ে বিদেশ গেলে অর্থ সম্মান দুটই মিলে। তাই প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। প্রবাসে কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিতদের মূল্যায়ন বেশি।

শনিবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে জকিগঞ্জের সাজ্জাদ মজুমদার বিদ্যানিকেতন ক্যাম্পাসে হাফিজ মজুমদার শিক্ষা ট্রাস্টের ৩৬তম বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রদান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা গুলো বলেন।

এসময় তিনি আরও বলেন, আমাদের দায়িত্ব হল আমাদের ভবিষৎতের জন্য কিছু করা। আগামি প্রজন্মকে সঠিক পথ দেখানো।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, পুরুস্কার পাওয়া একটা গৌরবের বিষয়। এটি যিনি পুরস্কার পান শুধু তার প্রাপ্তি নয়। আশপাশের ছোট বড় সবার প্রাপ্তি। যেমন আপনি পুরুস্কার পেলে ছোটরা বলবে আমি তার মত হতে চাই। আর বড়রা বলবে আমাদের অমুক অনেক বড় পুরুস্কার পেয়েছে। পুরুস্কার পাওয়া হল নিজের সাথে প্রতিযোগিতা। আমি যা অর্জন করেছি তার চেয়ে আরও বেশি অর্জন করতে হবে।

অনুষ্ঠানে প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের মোট ৬৬১ জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি প্রদান করা হয়।

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, হাফিজ মজুমদার শিক্ষা ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ও সিলেট-৫ আসনের এমপি হাফিজ আহমদ মজুমদারের সভাপতিত্বে ও বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো ভাইস চ্যানসেলর ড. নাসরিন আহমদ, হাফিজ মজুমদার শিক্ষা ট্রাস্টের একাডেমিক চেয়ারম্যান ড. কবির এইচ চৌধুরী, লার্স হোমের অধ্যক্ষ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জুবায়ের সিদ্দিকী (অব.), জকিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজন কুমার সিংহ, পুবালী ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালক ও ট্রাস্টের সদস্য রানা লায়লা হাফিজ, সিলেট শিক্ষক সমিতির সভাপতি কুতুব উদ্দিন প্রমুখ।

ট্রাস্টের সদস্য খায়রুল আলম ও ট্রাস্টের সহকারী সচিব শুভ্র কান্তি দাস এর সঞ্চালনায়, অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন হাফিজ মজুমদার শিক্ষা ট্রাস্ট এর সচিব, জকিগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান লোকমান আহমদ চৌধুরী।

সভাপতির বক্তব্যে সিলেট ৫ আসনের এমপি হাফিজ আহমদ মজুমদার বলেন, আমি বিশ্বাস করি আজকের এই শিশুরাই দেশকে উন্নয়নের শিকরে পৌঁছাতে অগ্রনী ভূমিকা পালন করবে। ইতোমধ্যে আমাদের দেশের শিক্ষার্থীরা বিশ্বের নামিদামি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখা করে বিভিন্ন বড় কোম্পনিতে চাকুরি করছে। আমাদের দেশের শিক্ষার্থীরা গবেষণা, উদ্ধাবনও করছে। চিকিৎসা সেবায়ও আমাদের দেশের শিক্ষার্থীদের অগ্রনী ভূমিকা আছে। আমি আশা করি। আজকের বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা আগামিতে দেশ গড়া কাজে সম্পৃক্ত হবে।