• জানুয়ারি ৩০, ২০২০
  • শিক্ষাঙ্গন
  • 49
শাবিতে বিদ্যাদেবী উৎসবমুখর সরস্বতী পূজা

শাবি প্রতিনিধিঃ (সিলেট): নানা আয়োজন ও উৎসবমুখর পরিবেশে চলছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) বিদ্যাদেবী সরস্বতীর আরাধনা। হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব এটি।

বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) সকাল থেকে মণ্ডপগুলোতে পূজায় অংশ নিতে ভিড় জমান সনাতন ধর্মালম্বী শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। পূজা উপলক্ষে প্রতিটি বিভাগের সামনে স্থাপন করা হয়েছে সরস্বতী প্রতিমা। বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা ব্যাপক উৎসাহ নিয়ে অংশ নিচ্ছেন বিদ্যাদেবীর এ পূজায়। শিক্ষা, সংগীত ও শিল্পকলায় সফলতার আশায় সনাতন ধর্মালম্বী শিক্ষার্থীরা দেবীর পূজা অর্চনা করেছে। এবার ক্যাম্পাসের মোট ২৬টি মণ্ডপে পূজা উদযাপন করা হচ্ছে। হিন্দু শিক্ষার্থীদের আয়োজনে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উজ্জীবিত শিক্ষার্থীরাও যোগ দিয়েছেন।

সরস্বতী পূজা উপলক্ষে ভোর ৫টায় প্রতিমা স্থাপন, সকাল ৮টায় পূজা শুরু, সকাল ৯টায় পুষ্পাঞ্জলি অর্পণ করা হয়েছে এবং দুপুর ১২টা থেকে প্রসাদ বিতরণ শুরু হয়। অন্যদিকে সন্ধ্যা ৬টা সন্ধ্যা আরতি এবং সন্ধ্যা ৭টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন ও বাংলাদেশ বেতার টেলিভিশন শিল্পীদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে।

পূজা দিতে আসা লোকপ্রশাসন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী বিজয় কুমার বলেন, আমরা মনে করি এ পূজার মাধ্যমে প্রমাণিত হয়, বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ। এখানে কোনো ধরনের ধর্মীয় বিদ্বেষ থাকতে পারে না। এ পূজার মাধ্যমে আমরা বিদ্যাদেবীর আদর্শে অনুপ্রাণিত হতে চাই, যেন আমরা বিদ্যা অর্জনে দেবী স্বরস্বতীর আদর্শ অনুসরণ করতে পারি।

পূজা দিতে আসা আরেক শিক্ষার্থী নির্ণয় রয় বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় একটি সার্বজনীন স্থান। এখানে ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় থাকবে এটাই স্বাভাবিক। কেউ কারো ধর্মে হস্তক্ষেপ না করার শিক্ষাই এ পূজায় বিশেষ গুরুত্ব বহন করে। দেশের প্রতিটি মানুষ অসাম্প্রদায়িকতা, অজ্ঞানতার অন্ধকার, কূপমণ্ডূকতা আর অকল্যাণকর সব বাধা পেরিয়ে একটি উন্নত সমাজ গঠনে এগিয়ে আসবে, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।