• এপ্রিল ৯, ২০২০
  • শীর্ষ খবর
  • 816
খাদ্যসামগ্রী বিতরণে নিজ এলাকায় ছুটছেন মিজান চৌধুরী

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ ছাতক উপজেলার ভাতগাঁও ইউনিয়ন। এই ইউনিয়নের সন্তান বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও ছাতক উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী।

করোনাভাইরাসের সংকটময় মূহুর্তে সারাদেশের ন্যায় এ ইউনিয়নের হতদরিদ্র ও কর্মহীন মানুষজনও ছিলেন বিপাকে। তাদের খাদ্য সংকট প্রকট আকার ধারণ করেছিল। এ কারণে নিজের ইউনিয়নের হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে ছুটে আসেন মিজান চৌধুরী।

ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার তিনি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ভাতগাঁও ইউনিয়নসহ উপজেলার ৫ ইউনিয়নের ৬টি স্থানে হতদরিদ্র কর্মহীন ২ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন।

উপজেলার ভাতগাঁও ইউনিয়নের হায়দর পুর স্কুল মাঠ, মন্ডল পুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ, সিংচাপইড় ইউনিয়নের সমতা হাইস্কুল, জাউয়া বাজার ইউনিয়নের খারাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ, চরমহল্লা ইউনিয়ন অফিস ও ছাতক ইউনিয়নের আন্ধাইর গাঁও বাজার সংলগ্ন মাঠে পৃথক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এসব খাদ্য সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়।

করোনা ভাইরাসের সংকটময় মূহুর্তে ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলার ২২টি ইউনিয়ন এবং একটি পৌরসভার ১০ হাজার কর্মহীন হতদরিদ্রদের পাশে দাঁড়িয়েছেন তিনি। এর আগে গত দুই দিনে ছাতক উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়ন এবং দোয়ারাবাজার উপজেলার সবকটি ইউনিয়নে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন।

এরই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার নিজের ইউনিয়নসহ আরও ৫টি ইউনিয়নে খাদ্যসামগ্রী বিতরণে নামেন মিজান চৌধুরী। তার বড় ভাই আম্বরখানা বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি কুতুব রহমান চৌধুরীও তার সাথে ছিলেন।

এ বিষয়ে মিজানুর রহমান চৌধুরী বলেন, ‘জনসাধারণের দুঃসময়ে আমি ঘরে বসে থাকতে পারিনি। এজন্য নিজের অর্থায়নেই তিনি দুই উপজেলার ১০ হাজার হতদরিদ্র কর্মহীনদের মাঝে খাদ্য তুলে দিতে কাজ করছেন। এতে কিছুটা হলেও হতদরিদ্র কর্মহীনদের খাদ্য সংকট কমবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।’

খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে ছাতক উপজেলা বিএনপির আহবায়ক সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ সভাপতি ফারক আহমদ, সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন ও উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়াড বিএনপির অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •