• মে ১১, ২০২০
  • বিজ্ঞপ্তি
  • 615
মানুষ না খেয়ে মারা যাবে এটা কখনও কাম্য নয় : মিজান চৌধুরী

নিউজ ডেস্কঃ বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও বিগত নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-৫ ছাতক দোয়ারাবাজার আসনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী মিজানুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, অসহায় মানুষের ঘরে খাবার পৌঁছে দিতে পারায় আমার রাজনৈতিক জীবন সার্থক বলে আমি মনে করি। মানুষের সুখে দুঃখে পাশে থাকার অঙ্গীকার নিয়েই আমাদের রাজনীতি । এই করোনা দুর্যোগে মানুষ না খেয়ে মারা যাবে এটা কখনও কাম্য নয়, তাই ছাতক দোয়ারাবাজারের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছুটে চলি দূর্গত অসহায় মানুষের হাতে খাদ্য সহায়তা পৌছে দিতে।

সোমবার (১১ মে) ছাতক উপজেলার ভাড়গাঁও ইউনিয়নের ৫.৬.৭.৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডে দ্বিতীয় দফায় উপহার সামগ্রী বিতরণ কালে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি বলেন, দেশের মানুষের ভরসাস্থল হচ্ছে বিএনপি। করোনার এই ভয়াবহতার মধ্যে অসহায় মানুষের মধ্যে বিতরণের ত্রাণ লুটপাট করছেন কিছু সংখ্যক জনপ্রতিনিধিরা। অপর দিকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনায় সারা দিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত প্রায় ১৪ লক্ষ পরিবারের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন বিএনপি পরিবারের নেতাকর্মীরা। এরই ধারাবাহিকতায় এখন পর্যন্ত ছাতক-দোয়ারার ১৩ হাজার মানুষের ঘরে খাবার পৌঁছে দিয়েছি এবং তা চলমান রয়েছে।

মিজান চৌধুরী বলেন, করোনা ভাইরাস ছোঁয়াচে রোগ জেনেও আমি ঘরে থাকিনি, নির্বাচনের পূর্বে মানুষের সুখে দুখে পাশে থাকার ওয়াদা আমাকে ঘরে থাকতে দেয়নি। করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে লকডাউনের শুরু থেকে কর্মহীন, অসহায়, দরিদ্র, দিনমজুর মানুষের ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দিয়েছি। আমার এ সাহায্য অপ্রতুল ছিলনা তবুও আমার সামর্থ্য অনুযায়ী সাহায্য সহযোগিতা করে চলেছি।

উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতির শুরুতেই প্রথম দফায় ছাতক-দোয়ারাবাজারের ২২ টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার ১০ হাজার কর্মহীন, অসহায়, দরিদ্র মানুষের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন । এরই ধারাবাহিকতায় দ্বিতীয় দফায় শনি, রবি ও আজ সোমবার তিন হাজার মানুষের মধ্যে উপহার সামগ্রী বিতরণ করেন । তার এই সহায়তা অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •