• জুন ৭, ২০২০
  • শীর্ষ খবর
  • 177
বানিয়াচংয়ে কালভার্টসহ রাস্তা ও বৈদ্যুতিক খুঁটি নিয়ে আতঙ্কে

আব্দাল মিয়া, বানিয়াচং প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার ৪নং দক্ষিণ-পশ্চিম ইউপি’র অন্তর্গত গ্যানিংগঞ্জ বাজার থেকে বড় বাজার যাওয়ার রাস্তায় স্থানীয় এল আর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের উত্তর-পূর্ব কোণে একটি মিনি কালভার্ট ভেঙে চলাচলের প্রায় অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

সরজমিনে দেখা যায়, রাস্তার পার্শ্ববর্তী এলাকার প্রত্যেক বাড়ির বৃষ্টির পানি ড্রেন দিয়ে গড়িয়ে আসায় পানি বেগবান হয়ে কালভার্টসহ রাস্তাটি বার বারই ভেঙ্গে পড়ায় বিভিন্ন যান চলাচলসহ মানুষ দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। অপরদিকে কালভার্টের পাশে বৈদ্যুতিক খুঁটিও খুব ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। কালভার্টসহ রাস্তাটি যদি দ্রুত মেরামত করা না হয় বৃষ্টির পানিতে রাস্তার পাশের বৈদ্যুতিক খুঁটি ভেঙ্গে প্রায় ১০০ থেকে ১২০টি পরিবার বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাস্তাটি দীর্ঘদিন যাবত এই অবস্থা থাকার পরও সেটি মেরামত করতে আদৌ কোনো পদক্ষেপ নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। যতবারই ভাঙ্গে ততবারই স্বেচ্ছায় এলাকার সচেতন যুবকদেরকে নিয়ে সাময়িক মেরামত করা হয়। কালভার্টসহ রাস্তাটি মেরামত করা না হলে যে কোনো সময় এটি ভেঙে বড় ধরণের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছে স্থানীয়রা। এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য বাস, জিপ, ট্রাক, মাইক্রো, ইজিবাইক ও টমটমসহ বিভিন্ন যানবাহনে শত শত মানুষ চলাচল করছে। এছাড়াও দুইটি কিন্ডারগার্টেন, একটি প্রাইমারী প্রতিষ্ঠানসহ সাতটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমিক স্কুল, কলেজগামী শিক্ষার্থীসহ সাধারণ জনগণ রাস্তা দিয়ে চলাচল করে। তাই এ রাস্তাসহ কালভার্টটি দ্রুত মেরামতের জন্য জনপ্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী।

ইউপি’র চেয়ারম্যান রেখাছ মিয়া জানান, গত বছর আমার পরিষদ থেকে ১০ হাজার টাকা মাটি ফেলার জন্য বরাদ্দ দিয়েছি। এখনও আমি সহায়তা করে যাচ্ছি। আবার কালভার্টটি ভেঙে যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে গেছে। উপজেলা প্রকৌশলী আশ্বস্ত করেছেন নতুন করে একটি কালভার্ট নির্মাণের।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী আল-নূর তারেক বলেন, কালভার্টটি টেন্ডার হয়ে গেছে। এখন করোনা পরিস্তিতির জন্য কাজটি পিছিয়ে গেছে। কিছুদিনের মধ্যেই কালভার্টসহ রাস্তা মেরামত করা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •