• ডিসেম্বর ২৪, ২০২০
  • মৌলভীবাজার
  • 100
শ্রীমঙ্গলে পটকা মাছ খেয়ে বউ-শাশুড়ির মৃত্যু

মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলায় বিষাক্ত পটকা মাছ খেয়ে বউ-শাশুড়ির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের উত্তর ভাড়াউড়া গ্রামে ওই দুই নারীর মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় এক শিশু অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

মারা যাওয়া দুই নারী হলেন উপজেলার উত্তর ভাড়াউড়া গ্রামের জয়নাল আবেদিনের স্ত্রী সাহিদা বেগম (৪০) ও তাঁর পুত্রবধূ নুরুন্নাহার (২৯)। আর নুরুন্নাহারের ৯ বছর বয়সী ছেলে নাঈমকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার সকালে ফেরি করা মাছ বিক্রেতার কাছ থেকে পটকা মাছ কেনেন বাড়ির লোকেরা। বেলা সাড়ে তিনটার দিকে পটকা মাছ দিয়ে তাঁরা দুপুরের খাবার খান। এরপর থেকে বউ, শাশুড়ি ও শিশু নাঈমের শরীরে জ্বালাপোড়া শুরু হয়। বমি করতে করতে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন তাঁরা। একপর্যায়ে রাত ১০টার দিকে বউ-শাশুড়ি মারা যান। আর অসুস্থ অবস্থায় শিশু নাঈমকে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়।

শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. সাজ্জাদ হোসেন চৌধুরী বলেন, ‘উত্তর ভাড়াউড়া গ্রামের দুজন নারী মারা গেছেন। শুনেছি, তাঁরা পটকা মাছ খেয়েছিলেন। তাঁদের পরিবারের এক শিশু হাসপাতালে ভর্তি আছে। শিশুটি বর্তমানে শঙ্কামুক্ত। লাশের ময়নাতদন্তে জানা যাবে, তাঁরা পটকা মাছের বিষক্রিয়ায় মারা গেছেন, নাকি অন্য কোনো কারণে মারা গেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সব সময় জনগণকে পটকা মাছ না খাওয়ার কথা বলি। পটকা মাছ একটি বিষাক্ত মাছ। এই মাছ না খাওয়ার জন্য নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।’

মৌলভীবাজার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল ও কমলগঞ্জ) সার্কেল আশরাফুজ্জামান বলেন, শ্রীমঙ্গল থানা-পুলিশ লাশ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে। মাছ বিক্রেতাকে পাওয়া যায়নি। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •