• ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২১
  • শীর্ষ খবর
  • 19
বানিয়াচংয়ে নারীকে হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে হত্যা

বানিয়াচং প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে এক ষাটোর্ধ্ব নারীকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। ওই নারীর নাম জাকিরা বেগম (৬৫)। উপজেলার চৌধুরীপাড়া গ্রামের মৃত আবদুল হান্নান ঠাকুরের স্ত্রী তিনি।

নিহতের বাড়ি থেকে গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে তাঁর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই বানিয়াচং সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ মোহাম্মদ সেলিম ও বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এমরান হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

আজ শনিবার দুপুরে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যার জেলা সদর হাসপাতালে লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, জাকিরা বেগম চার সন্তানের জননী। তাঁর বড় ছেলে একটি বেসরকারি ব্যাংকে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা। এক ছেলে যুক্তরাজ্যে বসবাস করেন। মেয়ে ঢাকায় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত। জাকিরা বেগম ঢাকায় বড় ছেলের কাছে থাকতেন। মাঝেমধ্যে তিনি তাঁর ছোট ছেলে গোলাম কিবরিয়া ঠাকুরকে (৩৫) সঙ্গে নিয়ে গ্রামের বাড়ি এসে থাকতেন। সম্প্রতি তিনি ওই ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে বাড়িতে এসেছিলেন।

জাকিরা বেগম ঢাকায় বড় ছেলের কাছে থাকতেন। মাঝেমধ্যে তিনি তাঁর ছোট ছেলে গোলাম কিবরিয়া ঠাকুরকে (৩৫) সঙ্গে নিয়ে গ্রামের বাড়ি এসে থাকতেন।

গোলাম কিবরিয়া ঠাকুর পুলিশকে জানান, গতকাল সন্ধ্যা সাতটার দিকে তিনি মাকে ঘরে রেখে একটি কাজে গ্রামের পার্শ্ববর্তী গার্নিংগঞ্জ বাজারে যান। রাত নয়টার দিকে তিনি বাড়িতে এসে দেখেন, তাঁদের ঘরের সামনের দরজায় তালা লাগানো। একই ঘরের পেছনের দরজা খোলা। এ সময় তিনি মাকে ডাকাডাকি করলে ঘরের ভেতর-বাইরে কোথাও থেকে কোনো সাড়াশব্দ পাচ্ছিলেন না। একপর্যায়ে তিনি ঘরের ভেতরে গিয়ে দেখতে পান, তাঁর মায়ের লাশ ঘরের মেঝেতে পড়ে আছে। লাশের মাথা দিয়ে রক্ত ঝরছে। মাথা থেঁতলানো ও হাতল ছাড়া একটি হাতুড়ি মাথায় গেঁথে আছে। সঙ্গে সঙ্গে তিনি চিৎকার করলে আশপাশের বাড়ির লোকজন তাঁদের বাড়িতে ছুটে আসেন।

নিহতের ছোট ছেলে গোলাম কিবরিয়া ঠাকুর বলেন, হত্যাকারী আমাদের পূর্বপরিচিত। পরিচিত হওয়ার কারণেই আমি কখন বাড়ি থেকে বের হয়েছি বা আমার মা বাড়িতে কখন একা আছেন বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করে অপরাধীরা হত্যার সময় বেছে নিয়েছে।

বানিয়াচং থানার ওসি মো. এমরান হোসেন আজ বলেন, এটি নিশ্চিত হত্যাকাণ্ড। কী কারণে এই নারীকে হত্যা করা হয়েছে, পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে এবং মামলার প্রস্তুতি চলছে। লাশের ময়নাতদন্ত আজ সম্পন্ন হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •