• মার্চ ১৩, ২০২১
  • মৌলভীবাজার
  • 28
রাজনগরে ছিনতাইকারীদের হাতে ব্যবসায়ী খুন

মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের রাজনগরে পাওনা টাকা আদায় করতে গিয়ে এক ব্যবসায়ী খুন হয়েছেন। এসময় তার সাথে থাকা মেবাইল ফোন ও নগদ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে ছিনতাইকারীরা।

নিহত ব্যবসায়ীর নাম লক্ষণ পাল (৩৭)। তিনি হবিগঞ্জ জেলার লাখাই উপজেলার মোড়াকড়ি গ্রামের মৃত মনোরঞ্জন পালের ৪ ছেলের মধ্যে নিহত লক্ষণ সবার ছোট।

শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে রাজনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের পার্শ্বিপাড়া এলাকায় রাজনগর-কর্ণিগ্রাম সড়ক থেকে পুলিশ তার মৃতদেহ উদ্ধার করে। তার গলায় দড়ির দাগ, চোখেমুখে বালু ও পায়ের উরুতে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে বলে সুরতহালে পুলিশ উল্লেখ করে। নিহত লক্ষণের স্ত্রী ও ৩ বছরের এক কন্যা সন্তান রয়েছে।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, শ্রীমঙ্গল শহরের সেন্ট্রাল রোডের ব্যবসায়ী লক্ষণ পাল প্রতি শুক্রবারের ন্যায় রাজনগর উপজেলার বিভিন্ন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে পাওনা টাকা আদায় করতে যান। শুক্রবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে পাঁচগাঁও ইউনিয়নের আজাদের বাজার এলাকার বিকাশ ভট নামের এক ব্যবসায়ী সর্বশেষ তাকে মৌলভীবাজারগামী সিএনজি অটোরিক্সায় তুলে দেন। পরে রাত সাড়ে ১২ টার দিকে একজন সিএনজি অটোরিক্সা চালক উপজেলার সদর ইউনিয়নের পার্শ্বিপাড়া এলাকায় রাজনগর-কর্ণিগ্রাম সড়কের পাশে মৃতদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।

খবর পেয়ে রাজনগর থানার পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করে। পরিচয় শনাক্ত হতে মৃতের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার সহ বিভিন্ন থানার সাথে যোগাযোগ করে পুলিশ। পরে শনিবার (১৩ মার্চ) সকালে স্বজনরা রাজনগর থানায় গিয়ে মৃতদেহটি লক্ষণের বলে শনাক্ত করেন। ময়নাতদন্তের জন্য লক্ষণ পালের মৃতদেহ মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

নিহতের বড় ভাই স্বপন পাল বলেন, প্রতি শুক্রবার লক্ষণ রাজনগরে পাওনা টাকা আদারে জন্য যেতো। রাত সাড়ে ৩ টার দিকে আমরা জানতে পারি আমার ভাইয়ের মৃতদেহ পাওয়া গেছে। পরে আমরা থানায় গিয়ে মৃতদেহ শনাক্ত করি।

রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল হাসিম বলেন, নিহতের গলায় দড়ি জাতীয় কিছুর দাগ, চোখেমুখে বালু ও ডান পায়ের উরুতে জখম রয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। পরিবারের সদস্যরা মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করতে পুলিশ তদন্ত করছে।

  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    5
    Shares