• মে ২৬, ২০২১
  • জাতীয়
  • 65
কোনো বাংলাদেশি ইসরায়েলে গেলে শাস্তি পেতে হবে

নিউজ ডেস্কঃ বাংলাদেশের পাসপোর্ট থেকে ইসরায়েল প্রসঙ্গটি বাদ দেওয়া হলেও দেশটি ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা অপরিবর্তিত রেখেছে সরকার। এমন অবস্থায় সরকারের অনুমতি ছাড়া দেশটিতে কোনো বাংলাদেশি নাগরিক গেলে তাকে আইনের মুখোমুখি হতে হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

বুধবার (২৬ মে) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় ঢাকায় নিযুক্ত ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূত ইউসুফ এস ওয়াই রামাদানের কাছে দেশটির জন্য জরুরি চিকিৎসা সামগ্রী হস্তান্তরকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘ইসরায়েলের সঙ্গে আমাদের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা অপরিবর্তিত রয়েছে। আমরা ইসরায়েলকে দেশ হিসেবে মানি না। যতদিন আমরা ইসরায়েলকে স্বীকৃতি দিচ্ছি না, বাংলাদেশি কোনো নাগরিক সে দেশে যেতে পারবে না। এমন অবস্থায় কোনো বাংলাদেশি সেখানে গেলে তাকে শাস্তি পেতে হবে।’

এ সময় বাংলাদেশের পাসপোর্ট থেকে ইসরায়েল প্রসঙ্গ বাদ দেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘কয়েক মাস আগে আমাদের পাসপোর্টে আধুনিকায়ন করেছি। আমরা নিজেদের অবস্থান থেকে সরিনি। যতদিন পর্যন্ত ফিলিস্তিন রাষ্ট্র হিসেবে সত্যিকারভাবে প্রতিষ্ঠিত না হবে, ততদিন পর্যন্ত আমরা ইসরায়েলকে স্বীকার করি না।’

বাংলাদেশ ফিলিস্তিনের পাশেই আছে জানিয়ে মোমেন বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি ফিলিস্তিনিরা একটি স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র পাবে। তাদের পক্ষে আমাদের অবস্থান দৃঢ়। তাদের ব্যাপারে আমাদের পররাষ্ট্রনীতির পরিবর্তন করিনি। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত পাসপোর্ট পরিবর্তন নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। ১৯৭২ সাল থেকেই আমরা ফিলিস্তিনের পাশে আছি।’

বাংলাদেশের ই-পাসপোর্ট থেকে মাস ছয়েক আগে ‘ইসরায়েল ছাড়া বিশ্বের সব দেশের ক্ষেত্রে বৈধ’ কথাটি বাদ দেওয়া হয়েছে। রোববার (২৩ মে) গুঞ্জন ওঠে, ইসরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কে জড়াচ্ছে ঢাকা।

পাসপোর্ট থেকে ইসরায়েলের নাম বাদ দেওয়ার বিষয়টি এক টুইট বার্তার মাধ্যমে আলোচনায় আনেন ইসরায়েলের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের উপ-মহাপরিচালক গিলার্ড কোহেন।

শনিবার (২২ মে) এক টুইট বার্তায় গিলার্ড কোহেন লেখেন, ‘বড় খবর। ইসরায়েলে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা সরিয়ে নিয়েছে বাংলাদেশ। এটি স্বাগত পদক্ষেপ। আমি বাংলাদেশ সরকারকে ইসরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের লক্ষ্যে এগিয়ে আসার আহ্বান জানাই। আশা করি, এতে উভয় দেশের জনগণ উপকৃত ও সমৃদ্ধ হতে পারে।’

এ টুইট বার্তার পরিপ্রেক্ষিতে রোববার (২৪ মে) বিকেলে এক বিবৃতিতে ইসরায়েল ইস্যুতে বাংলাদেশ সরকারের অবস্থান স্পষ্ট করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশের পাসপোর্ট থেকে ইসরায়েল কথাটি বাদ দেওয়া হ‌লেও দেশ‌টিতে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা অপরিবর্তিত আছে।

সোমবার ইসরায়েলের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে পাসপোর্ট থেকে শর্তটি বাদ দেওয়ার বিষয়টিকে ভালো খবর হিসেবে অ্যাখ্যা দেওয়া হয়। দেশটি বলছে, নতুন বন্ধুদের স্বাগত জানানোর প্রত্যাশায় রয়েছে তারা।

এদিকে, সোমবার (২৪ মে) ঢাকার ফিলিস্তিন দূতাবাসে সাংবাদিকের সঙ্গে আলাপকালে বাংলাদেশের পাসপোর্ট থেকে শর্তটি বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্তকে ‘অগ্রহণযোগ্য’ বলে মন্তব্য করেছেন ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূত। একইসঙ্গে তিনি বাংলাদেশের সিদ্ধান্তকে সংশোধনের আহ্বান জানিয়েছেন। ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূতের এমন মন্তব্যের পর গতকাল (মঙ্গলবার) ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •