• জুন ৭, ২০২১
  • শীর্ষ খবর
  • 55
সিলেটে আইনজীবী হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবি

নিউজ ডেস্কঃ সিলেটে আইনজীবী আনোয়ার হোসেন হত্যা মামলার প্রধান আসামি শাহজাহান চৌধুরীসহ এজহারভুক্ত আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানিয়েছেন সহকর্মীরা। আজ সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সিলেট আদালত প্রাঙ্গণে জাতীয় মানবাধিকার সোসাইটি জেলা শাখার ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে এ দাবি জানানো হয়।

কর্মসূচিতে সংগঠনের সিলেট জেলা শাখার সভাপতি আল আসলামের সভাপতিত্বে ও আইনজীবী সাইফুল ইসলাম তালুকদারের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ টি এম ফয়েজ উদ্দিন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচিত দুই সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান ও ফজলুল হক, সাবেক সভাপতি এ কে এম শমিউল আলম ও মোহাম্মদ লালা। এ ছাড়া বক্তব্য দেন আইনজীবী আবদুর রকিব, এম শহীদুল ইসলাম, বদিউল আলম, সৈয়দ নুরুজ্জামান, সৈয়দ আক্রাম আল মাহিন, আবদুল মুকিত, এমরান আহমদ চৌধুরী, জাতীয় মানবাধিকার সোসাইটি সিলেট জেলা শাখার সহসভাপতি মুর্শেদ মিয়া প্রমুখ।

বক্তারা আনোয়ার হোসেন হত্যা মামলার নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করে বলেন, ‘মামলায় প্রধান আসামি শাহজাহান চৌধুরীকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। আমরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের প্রতি আস্থা রাখতে চাই। দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রধান আসামিসহ অন্যদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। যাতে সমাজে এ ধরনের হত্যাকাণ্ড না ঘটে। বিচারটি যাতে ভবিষ্যতে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকে।’

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ১ মে শিপা বেগম তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকজনকে ফোন করে স্বামী আনোয়ার হোসেনের মারা যাওয়ার খবর দেন। স্বাভাবিক মৃত্যু ভেবে ওই দিন রাতে আনোয়ারের লাশ দাফন করা হয়। এর ১০ দিন পর শিপা বেগম অন্যত্র বিয়ে করেন বলে খবর পান আনোয়ারের স্বজনেরা।

আনোয়ারের ভাই মনোয়ার হোসেনকে বলেন, শিপা ও তাঁর বর্তমান স্বামী পূর্বপরিচিত। এতে পরিবারের সন্দেহ গাঢ় হয়। আনোয়ারের মৃত্যুর এক মাস পর পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যা মামলা করা হয়। মামলায় স্ত্রী শিপা বেগম ছাড়াও আনোয়ারের শাশুড়ি রেশনা বেগম, শিপা বেগমের বর্তমান স্বামী শাহজাহান চৌধুরীসহ আটজনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। ওই মামলায় গ্রেপ্তার শিপা বেগমকে রোববার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিলেট কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ইয়াছিন আলী বলেন, শিপা বেগমের রিমান্ড মঞ্জুরের নথি আজ সোমবার বেলা তিনটা পর্যন্ত আদালত থেকে পাওয়া যায়নি। সেটি হাতে আসার পরপরই আসামিকে রিমান্ডে আনা হবে। মামলার অন্য আসামিদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ইয়াছিন আলী বলেন, নিহত ব্যক্তির লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য আদালতে আবেদন জানানো হয়েছে। তবে আজ পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা আসেনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •