• জুলাই ৮, ২০২১
  • শীর্ষ খবর
  • 82
সিলেটে করোনা রোগী শনাক্তে নতুন রেকর্ড

নিউজ ডেস্কঃ সিলেটে প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত হয়ে একদিনে শনাক্তের সংখ্যার নতুন রেকর্ড হয়েছে। আজ সকাল ৮টা পর্যন্ত সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ৩৮৯ জনের শরীরে ভাইরাসটির সংক্রমণ শনাক্ত হয়। যা এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ। এ সময় আরও ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর এই ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্ত হয়েছেন ১৩৬ জন রোগী।

বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) সকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিলেট বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. সুলতানা রাজিয়া স্বাক্ষরিত কোভিড-১৯ কোয়ারেন্টিন ও আইসোলেশনের দৈনিক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, করোনা শনাক্ত ৩৮৯ জনের মধ্যে সিলেট জেলায় সর্বোচ্চ ২১৬ জনের পজিটিভ ধরা পড়েছে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৌলভীবাজারে ৬৬ জন। এছাড়া, সুনামগঞ্জে ১৬ জন, হবিগঞ্জে ৫১ জন এবং সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ৪০ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৩৯ জন। এর মধ্যে সিলেটের বিভিন্ন হাসপাতালে ২৫ জন, মৌলভীবাজারে ১০ জন ও সুনামগঞ্জে ৪ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। সব মিলিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ৫০৮ জন। এর মধ্যে সিলেটের বিভিন্ন হাসপাতালে ৪৫০ জন, সুনামগঞ্জে ২৬ জন, হবিগঞ্জে ৭ জন ও মৌলভীবাজারে ২৫ জন ভর্তি রয়েছেন।

এ বিভাগে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮ হাজার ১০৫ জন। এর মধ্যে সিলেটে ১৮ হাজার ৫৩২ জন, সুনামগঞ্জে ৩ হাজার ১৭৩ জন, হবিগঞ্জে ৩ হাজার দুইজন ও মৌলভীবাজারে ৩ হাজার ৩৯৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্ত হয়েছেন ১৩৬ জন। তার মধ্যে সিলেট জেলার ১০৮, সুনামগঞ্জের ৮, হবিগঞ্জের ৭ ও মৌলভীবাজারের ১৩ জন। আর এ পর্যন্ত সিলেট বিভাগে করোনামুক্ত হয়েছেন ২৪ হাজার ৪৭৮ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলার ১৬ হাজার ৭২৪ জন, সুনামগঞ্জ জেলার ২ হাজার ৮৬৬ জন, হবিগঞ্জ জেলার ২ হাজার ১২৫ জন ও মৌলভীবাজার জেলার ২ হাজার ৭৬৩ জন।

সিলেট বিভাগে সব মিলিয়ে করোনায় ৫০৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ৪১০ জন, সুনামগঞ্জে ৩৫ জন, হবিগঞ্জে ২২ জন এবং মৌলভীবাজারে ৩৮ জনের মৃত্যু হলো।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে সিলেট বিভাগে র‍্যাপিড এন্টিজেন টেষ্টের মাধ্যমে ৪৫ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়। তাদের মধ্যে জেলা ভিত্তিক সিলেটে ৯, সুনামগঞ্জে ৯, হবিগঞ্জে ৯ ও মৌলভীবাজারে ১৮ জন রয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •