• ডিসেম্বর ১৫, ২০২১
  • রাজনীতি
  • 81
খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আবারও খারাপ হয়েছে: মির্জা ফখরুল

নিউজ ডেস্কঃ খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আবারও খারাপ হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ বুধবার গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে ২২ ডিসেম্বর থেকে ৩২টি জেলায় সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা দেন। এর আগে ২০ ডিসেম্বর থেকে জেলাপর্যায়ে এ কর্মসূচি শুরুর ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল।

নতুন কর্মসূচির ঘোষণা দিয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘বিএনপির চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তাঁকে সুচিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর দাবিতে জেলাপর্যায়ে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। ২২ তারিখ থেকে এই কর্মসূচি শুরু হবে, চলবে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এ সমাবেশ উপলক্ষে আমরা জাতীয় পর্যায়ে কয়েকটি টিম গঠন করেছি।’

২২, ২৪ ও ২৬ ডিসেম্বর বিভিন্ন বিভাগের জেলা সদরে প্রতিদিন ৬টি এবং ২৮ ও ৩০ ডিসেম্বর প্রতিদিন ৭টি করে সমাবেশ হবে। প্রথম দিন ঢাকা বিভাগের টাঙ্গাইল, খুলনা বিভাগের যশোর, রংপুর বিভাগের দিনাজপুর, রাজশাহী বিভাগের বগুড়া, সিলেট বিভাগের হবিগঞ্জ ও চট্টগ্রাম বিভাগের ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সমাবেশ হবে। এসব সমাবেশ স্থায়ী কমিটির সদস্যদের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় নেতারা সমন্বয় করবেন। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম টাঙ্গাইলের সমাবেশে থাকবেন।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা কেমন, তা জানতে চাইলে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘ম্যাডামের শরীর আবারও একটু খারাপ হয়েছে। তাঁর বিভিন্ন প্যারামিটার নিচের দিকে। হিমোগ্লোবিন কমের দিকে। রক্তক্ষরণ এই মুহূর্তে বন্ধ আছে, গতকাল পর্যন্ত ছিল।’

গুরুতর অসুস্থ হওয়ায় গত ১৩ নভেম্বর খালেদা জিয়াকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর হাসপাতালের চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, তিনি লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত হয়েছেন। খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর দাবিতে ইতিমধ্যে বিএনপি ঢাকাসহ সারা দেশে মানববন্ধন, সমাবেশ, গণ–অনশন ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের স্মারকলিপি প্রদানের কর্মসূচি পালন করেছে। ২২ ডিসেম্বর থেকে নতুন কর্মসূচি শুরু হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, ইকবাল হাসান মাহমুদ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমানউল্লাহ আমান, আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •