• মার্চ ১০, ২০২২
  • শীর্ষ খবর
  • 326
হত্যা মামলায় পলাতক পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে শোকজ

হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লোকড়া ইউনিয়নের পাঁচ পীরের মাজারে আফজাল চৌধুরী হত্যা মামলার আসামি হয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন আজমিরীগঞ্জ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. আবদাল মিয়া চৌধুরী।

এ ঘটনায় মাত্র আটদিনের ছুটির আবেদন করে প্রায় দুই মাস ধরে কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় তাকে শোকজ করেছে পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়।

বৃহস্পতিবার (১০ মার্চ) জেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সম্প্রতি এক আদেশে তাকে শোকজ করা হয়। মো. আবদাল মিয়া চৌধুরী প্রায় দুই মাস ধরে কেন কর্মস্থলে অনুপস্থিত, এজন্য কারণ দর্শাতেও বলা হয়েছে।

জেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক মীর সাজেদুর রহমান জানান, আজমিরীগঞ্জ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. আবদাল মিয়া চৌধুরী দুই দফায় আটদিনের ছুটির আবেদন করে প্রায় দুই মাস ধরে কর্মস্থলে অনুপস্থিত। এজন্য দাপ্তরিক কাজ পরিচালনায় প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়েছে। তাকে শোকজ করা হয়েছে। তিনি যেহেতু হত্যা মামলার আসামি, আদালতের আদেশ অনুযায়ী এ ব্যাপারে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পুলিশ জানায়, গত ৯ জানুয়ারি রাতে লোকড়া ইউনিয়নের ফান্দ্রাইল পাঁচ পীরের মাজারে বার্ষিক ওরশ উপলক্ষে মেলা ও গানের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। রাত ১২টার দিকে গানের অনুষ্ঠান চলছিল। এসময় পূর্ব বিরোধকে কেন্দ্র করে ফান্দ্রাইল গ্রামের জালাল মিয়া চৌধুরীর ছেলে ও বিআরটিসি গাড়ির চালক আফজাল চৌধুরীকে ছুরিকাঘাত করে প্রতিপক্ষ। এ অবস্থায় আফজালকে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেলা সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় গত ১২ জানুয়ারি সদর মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করেন নিহতের ভাই তাউস মিয়া। এতে ৩৭ জনের নাম উল্লেখ ও আরও কয়েকজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়। এজাহারনামীয় আসামিদের মধ্যে আজমিরীগঞ্জ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. আবদাল মিয়া চৌধুরী অন্যতম। মামলা দায়েরের পর থেকেই তিনি পলাতক।

উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, মামলা দায়েরের পর থেকেই তিনি কর্মস্থলে অনুপস্থিত। দপ্তর থেকে ছুটিও নেননি তিনি।