• মার্চ ২২, ২০২২
  • জাতীয়
  • 252
সিলেটসহ ৪ বিভাগে বৃষ্টির আভাস

নিউজ ডেস্কঃ গত ১৫ মার্চ থেকে শুরু হওয়া তাপপ্রবাহ আপাতত কেটেছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। আগামী কয়েকদিন বৃষ্টির প্রবণতা থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

মঙ্গলবার সিলেট, রংপুর, ময়মনসিংহ এবং চট্টগ্রাম- দেশের এই ৪ বিভাগে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

গতকাল থেকেই ঢাকার আকাশেও হালকা মেঘ দেখা যাচ্ছে। গত কয়েকদিনের তুলনায় গরমও কিছুটা কমেছে। তাপমাত্রা কমায় অন্যান্য অঞ্চলেও গরম থেকে কিছুটা স্বস্তি মিলেছে বলে জানা গেছে।

সোমবার রাঙামাটি ছাড়া দেশের সব অঞ্চলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে গেছে। সোমবার রাঙামাটিতে দেশের সর্বোচ্চ ৩৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ছিল। মঙ্গলবার সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল শ্রীমঙ্গলে, ১৭ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

সোমবার সকাল ৬টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় রংপুর বিভাগে বৃষ্টি হয়েছে। এ সময়ে নীলফামারীর ডিমলায় ৩১ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৫ ও কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ মো. শাহীনুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট এবং চট্টগ্রাম বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

এ সময়ে সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে বলেও জানান এই আবহাওয়াবিদ।

অপরদিকে উত্তর আন্দামান সাগর ও তৎসংলগ্ন দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি আরও ঘণীভূত না হয়ে দুর্বল হয়ে যেতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এটি আর ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিচ্ছে না।

এটি মঙ্গলবার সন্ধ্যা নাগাদ দুর্বল অবস্থায় মিয়ানমারের উপকূল অতিক্রম করতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

তবে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে তাদের গভীর সাগরে বিচরণ করতে নিষেধ করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, গভীর নিম্নচাপটি সন্ধ্যা নাগাদ নিম্নচাপে পরিণত হয়ে মিয়ানমারের উপকূল অতিক্রম করতে পারে।