• মার্চ ২৪, ২০২২
  • জাতীয়
  • 183
প্রধানমন্ত্রীর কাছে অস্ত্রের হিসাব চাই: রিজভী

নিউজ ডেস্কঃ বাংলাদেশ থেকে দশ ট্রাক অস্ত্র বের হয়ে গেছে। বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি নাজমুল আহসান কলিম উল্লাহর এমন মন্তব্যের বিষয় তুলে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসব অস্ত্রের হিসাব চাই।

বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন(বিএফইউজে) এবং (ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) একাংশের যৌথ আয়োজনে রমজানের আগে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, নাজমুল আহসান বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে দশ ট্রাক অস্ত্র বের হয়ে গেছে। এই কথার তাৎপর্য কী? বিএনপি আমলের ১০ ট্রাক অস্ত্রের কথা বলে অনেকেরই ফাঁসি দিয়েছেন। মামলা হয়েছে। কিন্তু আজ এই দশ ট্রাক অস্ত্রের জন্য মামলা হয় না কেন? আর এটা যদি অপপ্রচার হয় তাহলে নাজমুল আহসান কলিম উল্লাহকে সরকার ধরছে না কেন? একটা প্রতিবাদ করেনি। এটা একটা ধোঁয়াশা রহস্য। কী করে দশ ট্রাক অস্ত্র বাহিরে চলে গেল? এর উত্তর প্রধানমন্ত্রীকে দিতে হবে।

রিজভী আহমেদ বলেন, বর্তমানে দেশে যে পরিমাণ ভিক্ষুক বেড়েছে তা আগে কখনো দেখিনি। কোনো সিগনালে দাঁড়ালে ভিক্ষুক এসে হা-হুতাশ করে। এ থেকেই বোঝা যায় দেশ দুর্ভিক্ষের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। ৭০ দশকের প্রথমার্ধে যে দুর্ভিক্ষের অবস্থা ছিল, দেশ সেই অবস্থার দিকে যাচ্ছে। আমি বিএনপির লোক বলে বলছি তা নয়, দেশের অনেক গণ্যমান্য বিশেষজ্ঞরাও একই কথা বলেছেন।

‘বিএনপি ক্ষমতায় আসার জন্য অন্ধকার খোঁজেন’ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্যের জবাবে রিজভী বলেন, অন্ধকার তো খোঁজেন আপনারা। আপনারা অন্ধকারকে পূজা করেন। দিনের আলোর ভোট নিশিরাতে করেছেন। তারপরও আপনার বলতে একটু দ্বিধা হয় না অন্ধকার খুঁজে বিএনপি বা বিরোধী দল। জনগণকে ক্ষুধার্ত রেখে আপনারা চোখ অন্ধ করে রেখেছেন। আর গোটা জাতির সঙ্গে তামাশা করছেন। এই তামাশা আর থাকবে না।

বিএনপির এই নেতা বলেন, কিছু ধনী বেড়ে গেলে সেই দেশটা সুখী ও স্বচ্ছল দেশে পরিণত হয় না। বরং প্রচণ্ড আর্থিক বৈষম্যতার কারণে সাধারণ মানুষ নিপতিত হয় ভয়ঙ্কর রকমের আর্থিক কষ্টের মধ্যে।

বিএফইউজের একাংশের সভাপতি এম আব্দুল্লাহর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন- সাংবাদিক নেতা শওকত মাহমুদ, এম এ আজিজ, নুরুল আমিন রোকন, কাদের গণি চৌধুরী, শহিদুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, দিদারুল আলম, আমিরুল ইসলাম অমর, আ স ম জাকির হোসেন প্রমুখ।