• এপ্রিল ৮, ২০২২
  • জাতীয়
  • 277
বিরোধী নেতাদের দ্রুত সাজা দিতে সেল গঠন করেছে সরকার

নিউজ ডেস্কঃ দ্বাদশ নির্বাচনের আগে বিরোধী দলের নেতাদের অতি দ্রুত সাজা দিতে সরকার সেল গঠন করেছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, আমরা শুনেছি যে, তালিকা তৈরি করেছে সরকার। সেই তালিকা ধরে বিভিন্ন জেলায় গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের বিরুদ্ধে যেসব মামলা আছে এই মামলাগুলো দ্রুত শেষ করার জন্য একটা সেল তৈরি করে দেওয়া হয়েছে। এই সেল দিয়ে অতি দ্রুত মামলাগুলো শেষ করার জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

আজ শুক্রবার গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, সেই ২০১৩ সালের মুগদা থানায় একটা ‘মিথ্যা গায়েবি’ মামলা হয়। এখন একজন মানুষকে একই ঘটনায় দুইটা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। মুগদা থানার বিস্ফোরক মামলায় ৩৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছিল। সেখানে ৩২ জন খালাস পেয়েছেন আর ৭ জনকে দুই বছর তিন মাস/দুই বছর এক মাস.. এভাবে সাজা দেওয়া হয়েছে। এটা কিন্তু এখন সারা দেশেই চলছে।

বিচার বিভাগ স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছে না দাবি করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, তার প্রমাণ হচ্ছে এই মুগদা থানার মামলাটা। যেখানে কোনো কিছু নেই, নাথিং। আমার বিরুদ্ধে যে মামলাগুলো আছে, সেই মামলাগুলোতে কী আছে? একটা হচ্ছে আমি ময়লার গাড়ি পোড়াচ্ছি, সেটা সিটি করপোরেশনের গাড়ি। আরেকটা আমার বিরুদ্ধে আছে সেক্রেটারিয়েটের (সচিবালয়) ভেতরে মোটর সাইকেলের পেছনে গিয়ে বোমা মেরেছি। এই ছল-চাতুরি প্রতারণা করে গোটা জাতিকে একটা ভয়াবহ অন্ধকার গহ্বরের দিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এর বিরুদ্ধে সবাইকে রুখে দাঁড়াতে হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার বিরোধী দলকে পুরোপুরি নির্মূল করতে কাজ করছে। আজকে ধরেন, ইউক্রেনে রাশিয়া আক্রমণ করার পরে যেভাবে নির্মূল করে দিচ্ছে, সেই একইভাবে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ে ইহুদিদের নির্মূল করেছে জার্মানির হিটলার, পাকিস্তান আমলে আমাদের এই বাংলাদেশে একটা জাতিকে নির্মূল করার জন্য যেমন নির্যাতন-নিপীড়ন-হত্যা সব কিছু চালানো হয়েছিল, পোড়ামাটির একটা অবস্থা তৈরি করা হয়েছিল… আজ ঠিক একইভাবে বাংলাদেশ থেকে বিরোধী দলকে নির্মূল করার জন্য সেই একই অভিযান চালানো হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, সরকার মুখে গণতন্ত্রের কথা, নির্বাচনের কথা বলছে। আওয়ামী লীগের নেতা-মন্ত্রীরা গলায় ফেনা তুলে ফেলছেন যে, সুষ্ঠু নির্বাচন, অত্যন্ত নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে। নতুন নির্বাচন কমিশন তৈরি করা হয়েছে। যখনই বিরোধী দল কর্মসূচি নিয়ে মাঠে এসেছে, তাদের ওপর একইভাবে অত্যাচার-নির্যাতন করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বয়ক আবদুস সালাম, যুগ্ম আহ্বায়ক নবী উল্লাহ নবী, ইউনুস মৃধা, মোশাররফ হোসেন খোকন, আবদুস সাত্তার, এস কে সেকান্দার, হারুনুর রশীদ প্রমুখ।