• জুন ৫, ২০২২
  • শীর্ষ খবর
  • 257
বিশ্বনাথ কলেজ ক্যাম্পাসে টিকটক ভিডিও ধারণ, আরেক ছাত্র বহিষ্কার

নিউজ ডেস্কঃ সিলেটের বিশ্বনাথ সরকারি কলেজ ক্যাম্পাসে টিকটক ভিডিও ধারণ করায় আরও এক শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বহিষ্কৃত মো. ইব্রাহিম আলী কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র। আজ রোববার কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. মানিক মিয়ার স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বহিষ্কারের বিষয়টি জানানো হয়।

এর আগে গত ৩০ মে দ্বাদশ শ্রেণির প্রস্তুতিমূলক পরীক্ষা চলাকালে পরীক্ষার হলে ভিডিও ধারণ করায় দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র সাকের হাসান (ক্লাস রোল নম্বর-১৯০), মো. রায়হান আহমদ (ক্লাস রোল নম্বর-১৯২) ও ইফতি আজাদ মিছবাহকে (ক্লাস রোল নম্বর-১৯৩) বহিষ্কার করা হয়।

সে সময় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হয়েছিল, ভবিষ্যতে কোনো শিক্ষার্থী পরীক্ষা হলে বা ক্লাসরুমে বা কলেজ ক্যাম্পাসে কোনো ধরনের ভিডিও ধারণ করলে বা টিকটক ভিডিও প্রকাশের তথ্য পাওয়া গেলে কলেজ থেকে আজীবন বহিষ্কার করা হবে।

এদিকে রোববার ইব্রাহিম আলীকে বহিষ্কারের বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, বিশ্বনাথ সরকারি কলেজ ক্যাম্পাসে টিকটক ভিডিওসহ যেকোনো ধরনের ভিডিও ধারণ গত সেপ্টেম্বর ২০২১ থেকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এমনকি কলেজের বিভিন্ন স্থানে এখনো সতর্কীকরণ নোটিশ টানানো আছে। এরপরও মো. ইব্রাহিম আলী কলেজ ক্যাম্পাসে বারবার টিকটক ভিডিও ধারণ করেছে। এ অপরাধে একাদশ শ্রেণির ছাত্র মো. ইব্রাহিম আলীকে কলেজ থেকে বহিষ্কার করা হলো।

এ ব্যাপারে বহিষ্কৃত ইব্রাহিম আলীর দাবি, তিনি আগে থেকেই টিকটক করতেন। তবে যেসব ভিডিওর কারণে তাকে বহিষ্কৃত করা হয়েছে, সেগুলো অনেক আগের। এক মাস ধরে তিনি নিজ ঘরেই রয়েছেন। কলেজে নতুন করে কোনো ভিডিও ধারণ করেননি।

কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. মানিক মিয়া বলেন, আগে তিন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। আজ রোববার আরও একজনকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ৮ জুন কলেজ পরিচালনা কমিটির সঙ্গে সভা রয়েছে। সেখানে বিস্তারিত আলোচনা করে বিষয়গুলোর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।