• জুলাই ১৫, ২০২২
  • লিড নিউস
  • 220
গোয়াইনঘাটে পূর্ব বিরোধের জেরে হত্যা, ঘরে অগ্নিসংযোগ

নিউজ ডেস্কঃ সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার চার বছর পূর্বের এক হত্যাকাণ্ডের বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের আবদুল কাদির (৪০) নামের একজনকে হত্যা। কাদির উপজেলার গোয়াইনঘাট সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ লাবু গ্রামের আব্দুল খালিকের ছেলে।

এসময় হত্যাকাণ্ডের শিকার কাদিরের টিনশেডের বসতঘরে অগ্নিসংযোগ করে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় আরও অন্তত ৫-৬ জন গুরুতর আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও কাউকে আটক করতে পারে নি।

শুক্রবার (১৫ জুলাই) সন্ধ্যার দিকে গোয়ানইঘাট উপজেলার সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ লাবু গ্রামে এ হত্যাকাণ্ড ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়- গত ৪ বছর পূর্বে দক্ষিণ লাবু গ্রামবাসীর সঙ্গে নিহত কাদিরের পিতা আবদুল খালিকের এক হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বিরোধ চলছিল। এ ঘটনায় উভয় পক্ষ মামলাও করেন। এনিয়ে গত কয়েকদিন ধরে উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। আজ শুক্রবার সন্ধ্যার পরপর আব্দুল খালিকের বাড়িতে প্রতিপক্ষ সাবেক মেম্বার শামসুদ্দিনের লোকজন আক্রমণ চালান। এসময় আবদুল খালিকের পুত্র আবদুল কাদির (৪০) কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করা হয় এবং তাদের বসতঘরে অগ্নিসংযোগ চালিয়ে সমস্ত বসতঘর পুড়িয়ে দেয়। এছাড়া এ ঘটনায় আরও ৫-৬ জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডে মারা যাওয়া কাদিরও পূর্বের হত্যাকাণ্ডে জড়িত ছিলেন এবং চার্জশিটভুক্ত আসামী।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম নজরুল ইসলাম বলেন, হত্যাকাণ্ড ও অগ্নিসংযোগের ঘটনার খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত কাদিরের লাশ উদ্ধার করি। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

তিনি বলেন- পুলিশের একাধিক টিম হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতার করতে কাজ করছে।

হত্যাকাণ্ডে মারা যাওয়া কাদির অন্য একটি হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামী ছিলেন বলেও জানান তিনি।