• জুলাই ২৭, ২০২২
  • জাতীয়
  • 310
এক মাসের তেল মজুত, অর্ডার রয়েছে আরও ৬ মাসের: বিপিসি

নিউজ ডেস্কঃ দেশে ৩২ দিনের ডিজেল এবং ৯ দিনের অকটেন মজুত আছে, এছাড়াও ৬ মাসের তেল অর্ডার (আমদানির আদেশ) করা আছে বলেও জানিয়েছে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি)।

বুধবার (২৭ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে জ্বালানি সরবরাহ ও মজুতের বিষয়ে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের চেয়ারম্যান এ বি এম আজাদ এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে আগামী ৩২ দিনের ডিজেল এবং ৯ দিনের অকটেন মজুত রয়েছে। এছাড়াও ৬ মাসের তেল আমদানি নিশ্চিত করা আছে।

এ বি এম আজাদ আরও বলেন, ৪ লাখ ৩১ হাজার ৮৩৫ মেট্রিক টন ডিজেল দেশে মজুত রয়েছে। আর অকটেন রয়েছে ১২ হাজার ২৩৮ মেট্রিক টন। আগামী ৩০ জুলাই দেশে পৌঁছাবে আরও ৩০ হাজার মেট্রিক টন ডিজেল।

দেশে ৪৪ দিনের জেট ফুয়েল এবং ৩২ দিনের ফার্নেস অয়েল মজুত আছে উল্লেখ করে গ্রাহকদের তেল কম কেনার কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি বলেও তিনি উল্লেখ করেন। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ আরও দীর্ঘায়িত হলেও তেলের সরবরাহ ঠিক রাখার পরিকল্পনা নেওয়া আছে বলেও দাবি করেন বিপিসি চেয়ারম্যান।

জ্বালানি ব্যবহার সাশ্রয়ে মোটরসাইকেলে সর্বোচ্চ ৪০০ টাকার এবং গাড়িতে সর্বোচ্চ তিন হাজার টাকার ডিজেল বা অকটেন নেওয়া যাবে, তেলের পাম্পে টানিয়ে রাখা এমন একটা বিজ্ঞপ্তি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে বিপিসি বলছে দেশে তেলের সংকট নেই। যা মজুত আছে তাতে আগামী এক মাস চলা যাবে।