• আগস্ট ১, ২০২২
  • শীর্ষ খবর
  • 158
হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জ থেকে জামায়াতের আমিরসহ তিন নেতা গ্রেপ্তার

নিউজ ডেস্কঃ সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জে সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্র ও নাশকশার পরিকল্পনার অভিযোগে উপজেলা জামায়াতের আমির হাবিবুর রহমান ও উপজেলা শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতি শেখ মো. তারিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রোববার (৩১জুলাই) গভীর রাতে জামালগঞ্জ উপজেলার ভীমখালী ইউনিয়নের কামলাবাজ গ্রাম থেকে হাবিবুর রহমানকে ও তরিকুল ইসলামকে সাচনাবাজার গ্রেপ্তার করে জামালগঞ্জ থানার পুলিশ।

এদিকে,. হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে জামায়াত ইসলামীর নেতা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মাওলারা হাবিবুর রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জামালগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তারকৃত জামায়াতের আমির হাবিবুর রহমানের বাড়ি থেকে পুলিশ সরকারি বিরোধী লিফলেট, ১৬ টি জিহাদী বই, একটি রাম দা ও একটি কিরিছ উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, কামলাবাজ গ্রামের উপজেলা জামায়াতের আমির হাবিবুর রহমানের বাড়িতে জামায়াত ও শিবিরের নেতাকর্মীরা নাশকতার পরিকল্পনা ও সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্রের বৈঠক করছে এমন খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সবাই পালিয়ে গেলেও জামায়াতের আমির হাবিবুর রহমানকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

এসময় হাবিবুর রহমানের বাড়ি থেকে সুনামগঞ্জ জেলা জামায়াত ইসলাম ও জেলা ইসলামী ছাত্র শিবিরের নানা কাগজপত্র, সরকার বিরোধী লিফলেট, ১৬ টি জিহাদী বই, একটি রাম দা ও একটি কিরিছ উদ্ধার করা হয়। পরে রাতেই উপজেলার সাচনাবাজার থেকে উপজেলা শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সম্পাদক শেখ মো. তরিকুল ইসলাম তারেককে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

সোমবার সকালে পুলিশ বাদী হয়ে গ্রেপ্তারকৃত দুইজনসহ শাহপুর গ্রামের ফখরুল আলম চৌধুরী, মানিগাঁও গ্রামের রুমেল মিয়া, ফেনারবাঁক গ্রামের খাইরুল ইসলাম, তেলিয়াপাড়া গ্রামের আব্দুল মুহিত, তেলিয়া নতুনপাড়ার মো. সফিক মিয়া, শাহপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলাম, রাঙ্গামাটিয়া গ্রামের শেরু আলম, তেলিয়াপাড়ার লিয়াকত আলী, শুকদেবপুর গ্রামের মাওলানা আব্দুল আওয়াল ও নোয়াগাঁও গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমসহ জামায়াত ও শিবিরের ১২ নেতার বিরুদ্ধে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে জামালগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করে। এরপর দুপুরে গ্রেপ্তারকৃত দুইজনকে সুনামগঞ্জের আদালতে সোপর্দ করা হয়।

জামালগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মো. আব্দুন নাসের বলেন,‘ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে বিশেষ অভিযান চালিয়ে হাবিবুর রহমান ও তারিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। হাবিবুর রহমানের বাড়ি থেকে সরকার বিরোধী লিফলেট ও অনেকগুলো জিহাদী বই এবং দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে থানায় মামলা হয়েছে এবং তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।’

এদিকে, হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে জামায়াত ইসলামীর নেতা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মাওলারা হাবিবুর রহমানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রোববার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে উপজেলার নতুন বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। হাবিবুর রহমান বানিয়াচং ৩ নম্বর দক্ষিণ পূর্ব ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান।

বানিয়াচং থানার ওসি অজয় চন্দ্র দেব জানান, জামায়াত ইসলামীর এই নেতাকে সৈদারটুলা গ্রামে সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ এসল্ট মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে।