• অক্টোবর ২৫, ২০২২
  • শীর্ষ খবর
  • 288
সিলেটে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় পণ্যসহ ৪জন গ্রেফতার

নিউজ ডেস্কঃ সিলেট মহানগর পুলিশের দক্ষিণ সুরমা থানা এলাকায় পৃথক অভিযানে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় পণ্য সহ ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোমবার রাতে নগরীর কদমতলী ও পিরোজপুর এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থানার শিলক এলাকার মৃত মো. নুর এর ছেলে ও সিলেট কোতোয়ালী থানার সোবহানীঘাট যতরপুর ৪৬/এ নবপুষ্প আবাসিক এলাকার বাসিন্দা সরোয়ার আলম (৪৮), ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর থানার বেলানগর এলাকার মো. ইব্রাহিম মিয়ার ছেলে ও সিলেট কোতয়ালী থানার কালীঘাটস্থ ফয়সল মিয়ার বাসা, ৪র্থ তলা ভাড়াটিয়া মো. ইমন (২২), সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার উপজেলার রাউলী গ্রামের রহমদ আলীর ছেলে মো. আল আমিন (২৮) ও কুশিউড়া গ্রামের আব্দুল হান্ননের ছেলে মো. মোশাহিদ (২৩)।

এসময় একটি মিনি পিকআপ ও ১টি ট্রাক থেকে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় বিস্কুট ও বিভিন্ন ধরণের ক্রীম জব্দ করা হয়েছে।

পুলিশ সুত্র জানায়, সোমবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে দক্ষিণ সুরমা থানাধীন কদমতলী থেকে চোরাকারবারী চোরাচালানের মাধ্যমে পিকআপ গাড়ী যোগে সিলেট হতে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল। এ সময় গাড়ীটিকে থামানোর জন্য সিগন্যাল দিলে মিনি পিকআপ গাড়ীটি সিগন্যাল অমান্য করে দ্রুতগতিতে পালানোর চেষ্টাকালে মিনি পিকআপের চালক সরোয়ার আলম (৪৮) ও হেলপার মো. ইমন (২২)কে পুলিশ আটক করে।

এসময় মিনি পিকআপ গাড়ী তল্লাশী করে ১৮টি কার্টুনে ১ হাজার ৮০০ পিস ‘Nevia Soft Cream’, ২০টি কার্টুনে ১০ হাজার ৮০০ পিস ‘Skin Shine Cream’, জব্দ করা হয়। এছাড়াও এসব মালামাল বহনকারী মিনি পিকআপ গাড়ীটিকেও, (ঢাকা মেট্রো-ঠ-১৪-০১০৫) জব্দ করা হয়।

একই রাত ২ টার দিকে দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশের অপর অভিযানে, পিরোজপুরস্থ আল-নূর কমিউনিটি সেন্টারের সামনে থেকে ট্রাক গাড়ী তল্লাশী করে ৮৮টি কার্টুনে ১০ হাজার ৫৬০ পিস ‘OREO Sandwich Biscuits’, জব্দ করে। এসময় গাড়ীর চালক ও হেলপার সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার উপজেলার রাউলী গ্রামের রহমদ আলীর ছেলে মো. আল আমিন (২৮) ও কুশিউড়া গ্রামের আব্দুল হান্ননের ছেলে মো. মোশাহিদ (২৩)কে আটক করা হয়। তাছাড়া অবৈধ বিস্কুট বহনকারী ট্রাকটিও (সিলেট মেট্রো-ড-১১-০২৯৭) জব্দ করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন এসএমপি দক্ষিণ সুরমা থানার ওসি (তদন্ত) সুমন কুমার চৌধুরী।