• নভেম্বর ১৬, ২০২২
  • শীর্ষ খবর
  • 62
ওসমানীনগরে যুবলীগ নেতার মামলায় বিএনপির ৩ শতাধিক নেতাকর্মী আসামি

নিউজ ডেস্কঃ সিলেটের ওসমানীনগরের গোয়ালাবাজারে যুবলীগ নেতাকর্মীদের উপর হামলার অভিযোগে স্থানীয় বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের প্রায় সাড়ে ৩ শ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

২৪ জনের নামোল্লেখ করে ও বাকিদের অজ্ঞাত রেখে বুধবার (১৬ নভেম্বর) সকালে ওসমানীনগর থানায় মামলাটি দায়ের করেন গোয়ালাবাজার ইউনিয়ন যুবলীগের সংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলার শশারকান্দি গ্রামের মৃত এলাইচ মিয়ার ছেলে রিপন মিয়া (৩০)।

রিপন মামলায় উল্লেখ করেন- জন্মদিন উপলক্ষে রিপন তার কয়েকজন বন্ধুদের নিয়ে মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় গোয়ালাবাজারস্থ সাজু রেস্টুরেন্টের সামনে আরও কয়েকজন বন্ধুর জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এসময় গোয়ালাবাজারের দক্ষিণ দিকে থেকে বিএনপির নেতাকর্মীরা লাঠিসোটা এবং লোহার রড নিয়ে হঠাৎ রিপন ও তার বন্ধুদের উপর হামলা চালান। এসময় হামলকারীদের মারপিটে রিপন আহত হন।

এ ঘটনায় পুলিশ পরে উপজেলার ইছামতি গ্রামের গোলাম কিবরিয়ার ছেলে ফয়ছল আহমদ লিমন (২৭) ও রবিদাস সোনারপাড়া গ্রামের আব্দুল রশিদের ছেলে মো. নুরুল ইসলাম (৩২) নামের দুজনকে গ্রেফতার করে। বুধবার তাদের আদালতে প্রেরণ করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত লিমন ও নুরুল ছাড়া মামলার আসামিরা হলেন- উপজেলার দয়ামীর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসটিএম ফখর উদ্দিন (৫৫), রাইকদাড়া গ্রামের মৃত ইসমাইল আলীর ছেলে মো. আব্দুর রউফ (আব্দুল), থানাগাঁও গ্রামের মৃত মৌলভী ফজলু রহমানের ছেলে আব্দুল্লাহ মিছবাহ (৫০), ইছামতি গ্রামের মৃত আব্দুল খালিকের ছেলে মুক্তার হোসেন বকুল (৪৮), খালেরপাড় গ্রামের জায়ফর আলীর ছেলে ফজল আহমদ জনি, খাদিমপুর গ্রামের চেরাগ আলীর ছেলে আহবাবুল হোসেন, পশ্চিম ব্রাহ্মনগ্রামের ওয়াহিদ উল্লাহ’র ছেলে মো. আব্দুর রকিব (রকিব আলী), গলমুকাপন গ্রামের মাহমুদুর রহমান চৌধুরীর ছেলে কয়েছ আহমদ চৌধুরী, পশ্চিম মোবারকপুর গ্রামের মৃত আব্দুল গণির ছেলে মো. মানিক মিয়া (৪৮), মজলিশপুর গ্রামের বদরুল আলমের ছেলে মো. রায়হান আহমদ (৪৬), মির্জা সহিদপুর গ্রামের মো. রিপন আহমদ, নিজ করনসী গ্রামের মৃত মোজাফের বক্সের ছেলে মান্নান বক্স (৫৫), এওলাতৈল গ্রামের ফজর উদ্দিনের ছেলে ইসলাম উদ্দিন (৪০), একই গ্রামের পলক উদ্দিনের ছেলে জিয়া উদ্দিন (৩০), নিজ করনসী গ্রামের আফতাব মিয়ার ছেলে শাহজাহান আলী, একই গ্রামের আফতাব মিয়ার ছেলে খালেদ হোসেন (৩০), জহিরপুর (নূরপুর) গ্রামের কালাই উল্লাহ গ্রামের ডালিম মিয়া, নিজ বুরুঙ্গা গ্রামের মো. বাদশা মিয়ার ছেলে মো. সাজ্জাদুর রহমান (৪৮), ময়না বাজার গ্রামের আব্দুর রউফের ছেলে সত্তার মিয়া (৫০), বরায়া নোয়াবাড়ী গ্রামের আকলুছ মিয়ার ছেলে আবির মিয়া (২৪), কাশিকাপন গ্রামের ইশ্বাদ আলীর ছেলে গৌছ আলী (৩৮) ও বুরুঙ্গা বাজার এলাকার মজনু মিয়া (৩৫)।

এছাড়াও মামলায় অজ্ঞাতনামা দুই থেকে তিন শ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ওসানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম মাঈন উদ্দিন বলেন- গ্রেফতারকৃত দুজনকে যুবলীগ নেতার দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে বুধবার জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত আর কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার বিকেলে নিখোঁজ বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীর স্ত্রী ও বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা তাহসিনা রুশদীর লুনা ওসমানীনগরের বিভিন্ন এলাকায় ১৯ নভেম্বরের সিলেটের বিভাগীয় মহাসমাবেশের প্রচারপত্র বিলি করতে আসেন। বিকেলে উপজেলার স্থানীয় উত্তর গোয়ালাবাজারের নিউ প্লাজার সামনে প্রচারপত্র বিলি করতে গেলে সেখানে স্থানীয় যুবলীগের নেতাকর্মীরা তাদের উপর হামলা করেন বলে বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়। তবে এ ঘটনায় বিএনপির পক্ষ থেকে কোনো মামলা দায়ের করা হয়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •