• ডিসেম্বর ২৪, ২০২২
  • জাতীয়
  • 170
সিলেটে গণমিছিল :‘লোকসমাগম দেখে সরকারের পায়ের নিচে মাটি সরে গেছে’

নিউজ ডেস্কঃ বিএনপির সঙ্গে এখন সাধারণ মানুষও রাজপথে দাঁড়িয়েছে। সারা দেশে বিএনপির কর্মসূচিতে লোকসমাগম দেখে সরকারের পায়ের নিচ থেকে মাটি সরে গেছে। কেউই এখন আর সরকারের পক্ষে নেই। আওয়ামী লীগ সরকার পুরোপুরি ব্যর্থ। বর্তমান সরকারের অধীন এ দেশে কোনো নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না।

সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত গণমিছিল–পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন। নগরের রেজিস্ট্রারি মাঠ থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে চৌহাট্টা এলাকায় গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগ, নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানসহ ১০ দফা দাবিতে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

দুপুর সাড়ে ১২টায় হাজারো নেতা-কর্মীর অংশগ্রহণে গণমিছিল শুরু হয়। মিছিলটি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে নগরের চৌহাট্টা এলাকায় গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়।

মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক আবদুল কাইয়ুম জালালী পংকীর সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান। সভা সঞ্চালনা করেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এমরান আহমদ চৌধুরী।

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার আবদুল মুক্তাদির, কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হাসান (জীবন), নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী এবং জেলা বিএনপির সভাপতি আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী। এ ছাড়া গণমিছিল শুরুর আগে রেজিস্ট্রারি মাঠে স্বাগত বক্তব্য দেন মহানগর বিএনপির সদস্যসচিব মিফতাহ্ সিদ্দিকী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোহাম্মদ শাহজাহান বলেন, সরকার পুরোপুরি ব্যর্থ। এই অনির্বাচিত সরকারের অধীন দেশে কোনো নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না। দীর্ঘদিন ধরে এই সরকার জুলুম-নির্যাতন চালিয়ে মানুষের জীবন অতিষ্ঠ করে ফেলেছে। বিএনপির পাশে দাঁড়িয়ে সাধারণ মানুষ এখন রাজপথে নেমেছে। বিএনপি মানুষের ভোটাধিকার নিশ্চিতে কাজ করছে।

কর্মসূচিতে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য আবুল কাহের চৌধুরী শামীম ও শাহরিয়ার হোসেন, জেলা বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক নুরুল হক ও কামরুল হুদা জায়গীরদার, মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি নাসিম হোসাইন ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিমসহ বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। বেলা পৌনে দুইটায় কর্মসূচি শেষ হয়।