• জুন ১৭, ২০২৩
  • শীর্ষ খবর
  • 194
সাংবাদিক নাদিম হত্যা: সিলেটে মুখে কালো কাপড় বেঁধে ইমজার প্রতিবাদ

নিউজ ডেস্কঃ জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জে সাংবাদিক গোলাম রাব্বানী নাদিম হত্যার প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে সিলেট টেলিভিশন সাংবাদিকদের সংগঠন ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন (ইমজা)।

শনিবার (১৭ জুন) বিকেলে সিলেটের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মুখে কালো কাপড় বেঁধে এই হত্যার প্রতিবাদ জানায় সংগঠনটির নেতারা।

ইমজার নেতারা বলেন, সাংবাদিকরা যেহেতু রাষ্ট্র ও সমাজের মঙ্গলের জন্য সব অন্যায়কারী, অত্যাচারী বা দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে সংবাদ করে থাকেন, সেটাই তাদের জন্য কাল হয়ে দাঁড়ায়। এর অন্যতম উদাহরণ সাংবাদিক নাদিমের হত্যাকাণ্ড। বর্বরোচিত এ হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানান সাংবাদিক নেতারা।

এ সময় নাদিম হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে যারা জড়িত সবাইকেই তদন্ত সাপেক্ষে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার আহ্বান জানান ইমজার নেতারা।

এছাড়া সাংবাদিক নাদিম হত্যা মামলাটি বিশেষ আদালতে পাঠিয়ে দ্রুত সময়ে বিচার নিষ্পত্তির দাবি জানিয়েছেন তারা।

অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নেন ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মাহবুবুর রহমান রিপন, সাধারণ সম্পাদক গোলজার আহমেদ, সময় টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিনিধি ইকরামুল কবির, এটিএন বাংলার প্রতিনিধি শাহ মুজিবর রহমান, এনটিভির প্রতিনিধি মারুফ আহমেদ, বাংলাভিশনের প্রতিবেদক দিপু সিদ্দিকী, গাজী টিভির প্রতিনিধি বিলকিস আক্তার সুমি, চ্যানেল আই নিজস্ব প্রতিবেদক সাদিকুর রহমান, ইমজার সাবেক সভাপতি আশরাফুল কবিরসহ ইমজার সব সাংবাদিকরা।

উল্লেখ্য, গোলাম রাব্বানী নাদিম বকশীগঞ্জ উপজেলার নিলাখিয়া ইউনিয়নের গোমের চর গ্রামের আবদুল করিমের ছেলে।

বুধবার (১৪ জুন) রাতে পেশাগত দায়িত্বপালন শেষে বাড়ি ফেরার পথে বকশীগঞ্জের পাথাটিয়ায় পৌঁছালে অস্ত্রধারী ১০ থেকে ১২ জন দুর্বৃত্ত নাদিমকে পিটিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

এরপর রাত ১২টায় সেখান থেকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় বৃহস্পতিবার সকালে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেলা পৌনে ৩টার দিকে তিনি মারা যান।