• জুন ১৮, ২০২৩
  • লিড নিউস
  • 178
সিলেটে সুরমা নদীর পানি আবারও বাড়ছে

নিউজ ডেস্কঃ সিলেটে সুরমা নদীর কানাইঘাট পয়েন্টে গতকাল শনিবার বেলা তিনটা থেকে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হতে শুরু করেছিল। আজ রোববার সকাল ৬টায় পানি বিপৎসীমার নিচে নেমে যায়। তবে সকাল ৯টার পর থেকে নদীর পানি বাড়ছে।

সিলেট পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্রে জানা গেছে, সুরমা নদীর কানাইঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমা ১২ দশমিক ৭৫ সেন্টিমিটার। সেখানে গতকাল সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ছিল ১২ দশমিক ৯৫ সেন্টিমিটার। আজ সকাল ৬টায় তা নেমে ১২ দশমিক ৬২ সেন্টিমিটার হয়েছিল। দুপুর ১২টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত নদীর ওই পয়েন্টে পানি ১২ দশমিক ৬৯ সেন্টিমিটার উচ্চতায় প্রবাহিত হচ্ছিল।

এদিকে সিলেট আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সকাল ৬টা থেকে আজ সকাল ৬টা পর্যন্ত সিলেটে ২৪ ঘণ্টায় ৯২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। আজ সকাল ৬টা থেকে সকাল ৯টা পর্যন্ত তিন ঘণ্টায় ৪৪ দশমিক ২ মিলিমিটার এবং সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত তিন ঘণ্টায় ৩৬ দশমিক ৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

সিলেট আবহাওয়া অধিদপ্তরের সহকারী আবহাওয়াবিদ শাহ মো. সজীব হোসাইন বলেন, সিলেটে আরও কয়েক দিন ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে।

পাউবো সূত্রে জানা গেছে, সিলেটের অন্যান্য নদ-নদীর পানিও বাড়ছে। সুরমা নদীর সিলেট পয়েন্টে গতকাল ৯ দশমিক ৯০ সেন্টিমিটার উচ্চতা দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছিল। সেখানে আজ দুপুর ১২টায় ১০ দশমিক ৪ সেন্টিমিটার দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। নদীর সিলেট পয়েন্টে বিপৎসীমা ১০ দশমিক ৮০ সেন্টিমিটার।

কুশিয়ারা নদীর শেওলা পয়েন্টে পানির বিপৎসীমা ১৩ দশমিক ৫ সেন্টিমিটার। সেখানে গতকাল ছিল ১১ দশমিক ১০ সেন্টিমিটার। আজ দুপুর ১২টায় নদীর ওই পয়েন্টে ১১ দশমিক ৫১ সেন্টিমিটার উচ্চতায় প্রবাহিত হচ্ছিল। নদীর ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে বিপৎসীমা ৯ দশমিক ৪৫ সেন্টিমিটার সেখানে গতকাল সন্ধ্যা ৬টায় প্রবাহিত হচ্ছিল ৭ দশমিক ৭০ সেন্টিমিটার দিয়ে। আজ দুপুর ১২টায় নদীর ওই পয়েন্টে ৮ দশমিক ৯ সেন্টিমিটার দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। সারি নদীর সারীঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমা ১২ দশমিক ৩৫ সেন্টিমিটার। সেখানে আজ দুপুর ১২টায় ১১ দশমিক ১৮ সেন্টিমিটার দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। ধলাই নদের ইসলামপুর পয়েন্টে পানি গতকালের তুলনায় পানি বেড়ে ৯ দশমিক ৮০ সেন্টিমিটার দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছিল।

সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান বলেন, বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের এরই মধ্যে অবহিত করা হয়েছে। আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত করে রাখার জন্য বলা হয়েছে।