• জুলাই ২৩, ২০২৩
  • বিনোদন
  • 327
শাকিবের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুললেন অপু

বিনোদন ডেস্ক: তারকা দম্পতি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস চলচ্চিত্রের পর্দার মতো বাস্তব জীবনেও একে অপরের প্রেমে পড়েন। ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল গোপনে বিয়ে করেন দুজন। তাদের সন্তান আব্রাহাম খান জয়ের জন্মও হয়েছিল গোপনে। এসব গোপন বিষয় সামনে চলে আসে ২০১৭ সালের এপ্রিলে।

সন্তানসহ একটি বেসরকারি টেলিভিশনে লাইভে আসেন অপু। এরপর ২০১৮ সালের ১২ মার্চ বিবাহবিচ্ছেদের মাধ্যমে দাম্পত্য জীবনের ইতি টানেন সাবেক এই তারকা জুটি।

এদিকে অতীতের তিক্ততা ভুলে আবারও এক ছাদের নিচে ফিরছেন শাকিব-অপু। বেশ কয়েক দিন ধরেই তাদের গতিবিধি এমন ইঙ্গিতই দিচ্ছে। বিশেষ করে ঈদে শাকিব-অপুর সিনেমা নিয়ে একে অপরকে শুভকামনা জানানো এবং সবশেষ ছেলেকে নিয়ে মার্কিন মুলুকে একসঙ্গে ঘুরে বেড়ানো এ ধারণাকে আরও জোরালে করছে। আবার অনেকেই বলছেন, তাদের বিবাহবিচ্ছেদই হয়নি।

তবে আদৌ এই তারকা দম্পতির ডিভোর্স হয়েছিল কি না? সে নিয়ে চলছে জোর আলোচনা। এবার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন অপু বিশ্বাস।

শুক্রবার (২১ জুলাই) রাতে যুক্তরাষ্ট্র থেকে একটি গণমাধ্যমে অপু বিশ্বাস বলেন, ‘২০১৭ সালের শেষের দিকে বিবাহবিচ্ছেদের জন্য আবেদন করেছিলাম ঢাকা সিটি করপোরেশনের (অঞ্চল-৩) মহাখালী জোনাল অফিসে। সেই আবেদন নিয়ে ওই সময় সালিস হয়। সম্প্রতি ওই সালিসের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়েছে। আমি ভিডিওটি দেখেছি। বিষয়টি নিয়ে সিটি করপোরেশনের সঙ্গে কথা বললে ভালো হয়। তারা এ বিষয়ে পরিষ্কার করতে পারবেন।’

অপু আরও বলেন, ‘বিষয়টি খুবই সেনসিটিভ। তাই আগেভাগে কিছু বলতে চাচ্ছি না। কারণ, আমরা যখন সম্পূর্ণ আলাদা হয়ে গিয়েছিলাম, তখন রাগের বশে না বুঝে অনেক কথা বলে ফেলেছিলাম। এ জন্য আমাকে ভুগতে হয়েছে। আমি আর ভুগতে চাই না। আমার মা–বাবা পৃথিবী ছেড়ে চলে গেছেন। আমি নতুন করে বাবা-মা পেয়েছি। শুধু স্বামী নয়, সন্তান, শ্বশুর, শাশুড়ি, ননদসহ পরিবারের সবাইকে নিয়ে সুন্দর জীবন পার করতে চাই। তাই একটু সময় দিন আমাকে, সুন্দর সময়ে সুন্দর কথাগুলো বলব।’

জানা গেছে, ২০১৭ সালের শেষের দিকে ঢাকা সিটি করপোরেশনের (অঞ্চল-৩) মহাখালী জোনাল অফিসে অপু বিশ্বাসের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের জন্য আবেদন করেছিলেন শাকিব খান। ওই সময় আবেদনটি নিয়ে সালিস হয়। শাকিব উপস্থিত না হলেও অপুর উপস্থিতিতে আবেদনের শুনানি হয়। সেই সালিসের একটি ভিডিও সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

ওই ভিডিওতে সিটি করপোরেশনের এক কর্মকর্তাকে বলতে শোনা যায়, আমাদের আজকের সালিস কেসে বিবাদী অপু বিশ্বাস উপস্থিত হয়েছেন। তার বক্তব্য প্রদান করেছেন। আসলে তিনি বিষয়টি মীমাংসা করতে চান, স্বামী নিয়ে সন্তান নিয়ে ঘর-সংসার করতে চান। কিন্তু বাদী উপস্থিত হননি। সাধারণ একটি সাদা কাগজে আবেদন পাঠিয়েছেন তিনি। কাজি অফিসের মাধ্যমে কোনো রেজিস্ট্রি হয়ে আসেনি এটি। এমনকি কোনো কাবিননামা, কোনো সাক্ষী বা কোনো হলফনামা নেই।

মূলত এরপর থেকে শাকিব-অপুর বিবাহবিচ্ছেদ হওয়া না হওয়ার বিষয়টি সামনে চলে আসে। ভিডিওটি দেখে অনেকে ধারণা করছেন, এখনও তাদের তালাক হয়নি।

এছাড়াও কিছুদিন আগে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের বিবাহবিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুলেছিলেন তাদের ঘনিষ্ঠজন মামুনুজ্জামান মামুন। যিনি ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় এই জুটির বিয়ের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে অপু বিশ্বাসকে এখনো ‘শাকিবের বৈধ বউ’ বলে মন্তব্য করেছেন মামুন। শুধু তাই নয়, শাকিব-অপুর এখনো ডিভোর্স হয়নি বলেও দাবি করেছেন মামুন।