• সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২৩
  • শীর্ষ খবর
  • 162
গভীর রাতে স্বামীকে হত্যাচেষ্টা, প্রেমিকসহ স্ত্রীকে গণপিটুনি

নিউজ ডেস্কঃ সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় গভীর রাতে পরকীয়া প্রেমিককে নিয়ে স্বামীকে হত্যার চেষ্টা করেছেন মনিরা বেগম নামের এক গৃহবধূ।

এ ঘটনায় পরকীয়া প্রেমিকসহ ওই নারীকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।

বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাত ১টার দিকে উপজেলার ঘাটেরচটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেপ্তার মনিরা বেগম উপজেলার হরিপুর গ্রামের আব্দুল্লাহের মেয়ে। তার প্রেমিক ফেরদৌস রহমান চৌধুরী একই উপজেলার ঘাটেরচটি গ্রামের মৃত ফরিদ মিয়ার ছেলে।

গুরুতর আহত ওমানপ্রবাসী স্বামীর নাম মিনহাজ উদ্দিন। তাকে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার (ইনচার্জ) তাজুল ইসলাম।

তিনি বলেন, পরকীয়া প্রেমিককে নিয়ে ঘুমন্ত স্বামীকে হত্যা চেষ্টা করেন মনিরা বেগম নামের ওই গৃহবধূ। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সম্প্রতি দেশে ফেরেন ওমানপ্রবাসী মিনহাজ উদ্দিন। বৃহস্পতিবার রাতে স্ত্রী মনিরাকে নিয়ে ঘুমাতে যান। কৌশলে স্বামীকে রাতে ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে অচেতন করে রাখেন স্ত্রী। এরপর রাতে প্রেমিক ফেরদৌসকে ডেকে আনেন। রাত সাড়ে ১২টার দিকে হঠাৎ ঘুম ভেঙে স্ত্রী মনিরাকে পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখে ফেলেন মিনহাজ। এ সময় তাকে জাপটে ধরে মাটিতে ফেলে দেয় মনিরা-ফেরদৌস এবং মিনহাজের হাত-পা বেঁধে ওড়না দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা চালান মনিরা।

এ সময় মিনহাজের গোঙানির শব্দ শুনে পাশের ঘর থেকে তার বাবা ও স্বজনেরা গিয়ে দরজায় ডাকতে থাকেন। তখন মনিরা দরজা খুলে দিলে মিনহাজের খোঁজ করেন তার বাবা। একপর্যায়ে তাকে মাটিকে শোয়া অবস্থায় কম্বল দিয়ে আড়াল করে রাখা অবস্থায় দেখতে পান। কম্বলটি সরাতেই মিনহাজকে হাত-পা বাঁধা গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করেন তারা। পরে ঘরের ভেতর থেকে মনিরার প্রেমিক ফেরদৌসকে আটক করা হয়। স্থানীয়রা ফেরদৌসকে বেঁধে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেন।

এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে আহত মিনহাজের বাবা নুর মিয়া জৈন্তাপুর থানায় হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেন।