• অক্টোবর ৯, ২০২৩
  • বিজ্ঞপ্তি
  • 250
সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

নিউজ ডেস্কঃ এক দফা দাবি আদায়ে বিএনপি ও যুগপৎ আন্দোলনের কর্মসূচীর অংশ হিসেবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ প্রেরণের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি।

সোমবার বিকেলে নগরীর রেজিস্ট্রারী মাঠে বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়।

সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইনের সভাপতিত্বে, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরী ও  মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ হোসেন চৌধুরীর যৌথ সঞ্চালনায় সমাবেশে দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আব্দুল কাহের চৌধুরী শামীম। সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মামুনুর রশিদ, হাজী শাহাব উদ্দিন আহমদ, শাহজামাল নুরুল হুদা, ইকবাল বাহার চৌধুরী, মিফতাহ সিদ্দিকী, রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, সৈয়দ মিছবাহ উদ্দিন, নজিবুর রহমান, সামিয়া বেগম চৌধুরী।

সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী বলেন, দেশে গণতন্ত্র, ভোটাধিকার, আইনের শাসন নেই। ডলার ও রিজার্ভ সংকটের পণ্য আমদানি করা যাচ্ছেনা। দেশ মারাত্মক ভাবে অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের মধ্যে রয়েছে। আর জোর করে ক্ষমতা দখল করে থাকা ফ্যাসিস্টরা দেশের হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে। সরকার দেশ পরিচালনায় সর্বক্ষেত্রে ব্যার্থতার পরিচয় দিয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নিঃশর্ত মুক্তি দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করতে হবে এবং অভিলম্বে পদত্যাগ করে নির্দলীয় সরকারের অধিনে জাতীয় নির্বাচন দিতে হবে। অন্যতায় দেশবাসীর রাজপথে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে ফ্যাসিবাদকে ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করবে। তারা বলে তলে তলে আপোষ হয়ে গেছে। আর বাস্তবতা হচ্ছে তলে তলে ফ্যাসিস্ট সরকার বঙ্গোপসাগরে তলিয়ে গেছে। স্বৈরাচারের সময় ফুড়িয়ে এসেছে, জনগনের বিজয় অনিবার্য।

সভাপতির বক্তব্যে সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আজীবন দেশের গণতন্ত্র, বাকস্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম করে যাচ্ছেন। দেশ ও জাতিকে তিনি নিজের সময় সর্বোচ্চ  মেধা প্রয়োগ করে ভালো রাখার চেষ্টা করেছেন। তিনি জীবনের এই পড়ন্ত বিকেলে এসে সুচিকিৎসার মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত রয়েছেন। সময় একদিন আসবে, সবকিছু হিসাব হবে ইনশাআল্লাহ