• ডিসেম্বর ২৮, ২০২৩
  • শীর্ষ খবর
  • 114
ওসির প্রত্যাহার চেয়ে ইসিতে অভিযোগ সুরঞ্জিত পত্নীর

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিনের প্রত্যাহার চেয়ে ইসিতে অভিযোগ দিয়েছেন সুনামগঞ্জ-২ (দিরাই-শাল্লা) আসনের সংসদ সদস্য ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ড. জয়া সেন গুপ্তা। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে কাঁচি মার্কায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) তিনি নির্বাচন কমিশনে দাখিল করা অভিযোগে উল্লেখ করেন, সম্প্রতি বদলি হয়ে দিরাই থানায় দায়িত্ব নিয়েই ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইখতিয়ার নানা কৌশলে কাস্তে মার্কার ভোটার ও কর্মী-সমর্থকদের হুমকি-ধমকি ও হয়রানি, ভয়-ভীতি প্রদর্শন করছেন।

ভোটারদের নাশকতা ও পুলিশের ওপর আক্রমণকারী হিসেবে অভিযুক্ত করে পুলিশ অ্যাসল্ট মামলায় গ্রেপ্তার করার ভীতি প্রদর্শন করছেন।

কোনো কোনো ভোটার-কর্মীকে থানায় ডেকে নিয়ে তার অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদের পক্ষে কৌশলে ভোট চাচ্ছেন। ওই প্রার্থীর দূরের সম্পর্কীয় আত্মীয় হিসেবে নিজেকে পরিচয় দিচ্ছেন। কোনো কোনো ভোটার ভোটকেন্দ্রে না যেতে হুমকি দিচ্ছেন। এতে করে সুষ্ঠু ভোট না হওয়ার আশঙ্কা ছাড়াও ভোটার উপস্থিতি কম হওয়াসহ উৎসবমুখর নির্বাচন অনুষ্ঠিত না হওয়ার উপক্রম হচ্ছে।

অভিযোগে বলা হয়, ওসির এমন আচরণে স্থানীয় সাংবাদিকও স্বাধীন সাংবাদিকতার অংশ হিসেবে নির্বাচনী রিপোর্টিং করা থেকে বিরত থাকতে বাধ্য হচ্ছেন।

অভিযোগের বিষয়ে দিরাই থানার ওসি বলেন, তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ ভিত্তিহীন। আইনি প্রক্রিয়ার বাইরে কোনো প্রার্থীর পক্ষে বা বিপক্ষে কোনো আচরণ করা হচ্ছে না।

চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদের পক্ষে ভোট চাওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে ওসি বলেন, কারও পক্ষ নিয়ে কাজ করছি না। সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্য নিয়মের মধ্যে থেকেই কাজ করছে পুলিশ।

ড. জয়া সেনগুপ্তা বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা, সাবেক মন্ত্রী প্রয়াত সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের স্ত্রী। প্রয়াত এ জাতীয় নেতার মৃত্যুর পর তিনি সুনামগঞ্জ-২ (দিরাই-শাল্লা) আসনে প্রতিনিধিত্ব করছেন।

তবে ড. জয়া সেনগুপ্তা এবার নৌকা প্রতীক পাননি। এখানে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদকে।