• মে ১৫, ২০২৪
  • শীর্ষ খবর
  • 13
তাহিরপুরে জমেছে ভোটের লড়াই

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ তাহিরপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন যত ঘনিয়ে আসছে ততই প্রার্থী ও সমর্থকদের মধ্যে মাঠের লড়াই জমজমাট হয়ে উঠছে। এ উপজেলা পরিষদের সিংহাসনে বসতে ৬ প্রার্থী মাঠে থাকলেও ভোটের মাঠে আলোচনায় রয়েছেন ৪ জন।

উপজেলার ভোটারা বলছেন, এবারের নির্বাচন বিষয়ে আগাম মন্তব্য করাটা কঠিন। তবে ধারণা করা হচ্ছে উপজেলায় ত্রিমুখী লড়াই হবে। এখানে কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ। যে যার মতো নির্বাচনী মাঠ নিজের দখলে রাখার চেষ্টা করছেন। এখানে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগের ৪ জন, বিএনপির ১ জন, স্বতন্ত্র ১ জন। আওয়ামী লীগের মধ্যে তিন প্রার্থী হওয়ায় নেতাকর্মী সহ ভোটাররা দ্বিধা-দ্বন্দে পড়েছেন। অপরদিকে উপজেলার বিএনপির নেতাকর্মীরা সরাসরি মাঠে না নামলেও তলে তলে নিজ নিজ পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে ভোট প্রার্থনা করছেন। আওয়ামী লীগের বড় একটা অংশ একাট্টা হয়ে মাঠে সরব রয়েছেন। তাদের তার্গেট ভোটাররা যাতে কেন্দ্রে যান এবং ভোট দেন। বিশেষ করে আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বি এখন আওয়ামীলীগ।

সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি, বালিজুড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজাদ হোসাইন বলেন, বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান সহ অধিকাংশ নেতাকর্মী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন খানের পক্ষে প্রকাশ্যেই মাঠে কাজ করছেন। তার পক্ষে জোয়ার উঠেছে, তিনি অনেক ভোটে বিজয়ী হবেন।

জানা যায়, প্রথম পর্যায়ে প্রচার-প্রচারণা নিরুত্তাপ থাকলেও বর্তমানে উপজেলার সাতটি ইউনিয়নে নির্বাচনী উত্তাপ বইছে। বিএনপির অধিকাংশ নেতাকর্মীরা চায়ের দোকানে, বাজারে বসে সময় পার করছেন এবং পর্যবেক্ষণ করছেন। ভোটারদের নিরুৎসাহ এবং উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় কর্মসূচি হিসেবে তারা উপজেলা সদরে লিফলেট বিতরণ করছেন।
সারোয়ার ইবনে গিয়াস নামে একজন জানান, তাহিরপুর উপজেলা সহ উত্তর বড়দল ইউনিয়ন বিএনপি ভোট ব্যাংক হিসাবে পরিচিত। উপজেলায় আওয়ামী লীগের চারজন, বিএনপির একজন প্রার্থী মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বিএনপির ভোটারা কেন্দ্রে গেলে বিএনপি থেকে সদ্য বহিষ্কৃত আবুল কাসেম’র (মোটরসাইকেল) বিজয়ী হওয়ার সম্ভবনা বেশি।

সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন জানান, এবার নির্বাচনে নেতার জনপ্রিয়তা যাচাই করে যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিবেন ভোটাররা। তিনি বলেন, তরুণ প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগ নেতা, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন (আনারস) এগিয়ে আছেন, তিনি বিপুল ভোটে বিজয়ী হবেন।

তাহিরপুর সদরের একজন সংবাদকর্মী জানান, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন এক সময় বিএনপি করতেন, পরে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন তিনি। তার ব্যক্তি ইমেজ ছিল, তিনি দল বদল করায় ভোটের মাঠে কিছুটা প্রভাব পড়েছে। তিনি যদি বিএনপি অংশের ভোটার টানতে পারেন তাহলে বিজয়ী হবেন।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন খান (কাপ পিরিচ), উপজেলা বিএনপির সহ সভাপতি, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান (বহিষ্কৃত) মো. আবুল কাসেম (মোটরসাইকেল), আওয়ামী লীগ নেতা, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন (আনারস), আওয়ামী লীগ নেতা, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বুরহান উদ্দিন (দোয়াত কলম), উপজেলা আওয়ালীগের সহ সভাপতি অধ্যাপক আলী মুর্তজা (ঘোড়া) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিঠু রঞ্জন পাল (হেলিক্পটার)।

এখানে ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৫৬ হাজার ২৫৪ জন। এরমধ্যে পুরুষ ৭৯ হাজার ২৭৬ জন এবং নারী ৭৬ হাজার ৯৭৫ জন। হিজরা ভোটার আছে ৩ জন। আগামী ২১শে মে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।