• মে ৯, ২০২০
  • বিজ্ঞপ্তি
  • 349
অসহায়দের সেবা করাকে আমি ইবাদত মনে করি : মিজান চৌধুরী

নিউজ ডেস্কঃ বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, বিগত নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-৫ ছাতক-দোয়ারাবাজার আসনের ধানের শীষের প্রার্থী মিজানুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, মানুষের সেবা করা রাজনীতির ধর্ম। আর দুর্যোগের সময়ে অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়ে সেবা করাকে আমি ইবাদত মনে করি। আমি নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি নই তবুও এই এলাকার জনগণের প্রতি আমার দায়িত্ব রয়েছে, সে দায়িত্ব আমি পালন করে যাচ্ছি। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনায় সারা দিয়ে, করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে লকডাউন থাকা অবস্থায় কর্মহীন, গরীব ও অসহায় মানুষের মধ্যে উপহার সামগ্রী বিতরণ কালে তিনি এসব কথা বলেন।

শনিবার (৯ মে) ছাতক উপজেলার ভাতগাঁও ইউনিয়নে  ১.২.৩ নং ওয়ার্ডে দ্বিতীয় দফায় উপহার সামগ্রী বিতরণ করেন তিনি।

এসময় তিনি বলেন, লকডাউনে থাকা মানুষ অনাহারে অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছে, বিনা ভোটের সরকার এসব মানুষের মুখে খাবার তুলে দিতে ব্যর্থ হয়েছে । করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকার ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। সরকারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, মানুষের বেশী বেশী পরীক্ষা করুন, মানুষের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করুন। গরীব মানুষের খাবার পৌঁছে দিন।

মিজান চৌধুরী বলেন, আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে সামর্থ্য অনুযায়ী প্রথম পর্যায়ে ১০ হাজার মানুষের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছি। এবার দ্বিতীয় দফায় আবারও এসব  অসহায় মানুষের ঘরে উপহাস সামগ্রী বিতরণ শুরু করেছি। এ বিতরণ অব্যাহত থাকবে। তিনি স্থানীয় সরকার দলীয় জনপ্রতিনিধিকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা যে উপায়েই জনপ্রতিনিধি হয়েছেন তার সঠিক দায়িত্ব পালন করুন। ঘরে বসে জনগণের সেবা করা যায় না। আপনার এলাকার ক্ষুধার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান। জনগণের হক তাদের বুঝিয়ে দিন।

তিনি আরও বলেন, অসহায় মানুষের কথা মনে হলে আমার পক্ষে ঘরে বসে সম্ভব হয়না। আমি ঘরে বসে থাকতে চাইওনা। করোনা ছোঁয়াচে রোগ জেনেও আমি মানুষের দুয়ারে দুয়ারে যাচ্ছি। আমি জনগণের পাশে ছিলাম, আছি থাক

বিতরণ কালে উপস্থিত ছিলেন, সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও ছাতক উপজেলা বিএনপির আহবাক ফারুক আহমদ ও সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ছাতক উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক  মো. নিজাম উদ্দিন
 উল্লেখ্য, করোনায় ভাইরাস মহামারিতে কর্মহীন, অসহায়, দরিদ্র ১০ হাজার মানুষের মধ্যে প্রথম পর্যায়ে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন তিনি। এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে আবারো উপহার সামগ্রী বিতরণ শুরু করেছেন তিনি।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •